৩০ ডিসেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ে বন্ধ রাখা অধিকার খর্ব করার সামিল

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিঃ বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন কিরণ ও সাধারণ সম্পাদক কফিল উদ্দিন মোহাম্মদ (শান্ত) আজ এক যৌথ বিবৃতিতে বলেন, নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ শুধু নির্বাচনের দিন বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করে, নির্বাচনের আগের দিন ও পরের দিন ফাইনাল পরীক্ষার শিডিউল রেখে দিয়ে দেশের বিভিন্ন বিভাগ ও বিভিন্ন জেলা থেকে দূর দূরান্ত থেকে পড়তে আসা শিক্ষার্থীদের ভোট প্রদানে পরোক্ষভাবে নিরুৎসাহিত করছে। যা শিক্ষার্থীদের রাজনৈতিক অধিকার খর্ব করার সামিল।

শিক্ষার্থীদের ভোটাধিকার যেন কোনভাবে ব্যহত না হয় অবিলম্বে সেই লক্ষ্যে নর্থ সাউথসহ সকল বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা ও কার্যদিবস জাতীয় নির্বাচন ৩০ ডিসেম্বর এর ২ দিন আগে এবং ২ দিন পর পর্যন্ত বন্ধ রাখতে হবে। কারণ আমরা লক্ষ্য করছি যে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে তরুণ ছাত্র সমাজের মধ্যে এক ধরনের রাজনৈতিক সচেতনতার ˆতৈরি হয়েছে। তাই আমরা মনে করি এই নির্বাচনে ভোট প্রদানের মাধ্যমে সঠিক এবং দুর্নীতিবাজমুক্ত, প্রগতিশীল স্বাধীন ভাবধারার নেতৃত্ব নির্বাচনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। এমতাবস্থায় শিক্ষার্থীরা যেন তাদের ভোটাধিকার থেকে বঞ্চিত না হয় সে ব্যাপারে সর্বাত্মক সহযোগিতা করা প্রত্যেকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ˆনতিক দায়িত্ব। নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের এহেন সিদ্ধান্তে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিরুপ প্রতিক্রিয়া ও অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। তারা বলছে শুধু ৩০ তারিখ বন্ধ হওয়ার ফলে আগের দিন অনেকের ফাইনাল পরীক্ষা থাকায় অনেকের পক্ষেই ঢাকার বাইরে গ্রামের বাড়িতে গিয়ে ভোট প্রদান সম্ভব না। তাছাড়া যারা ৩০ তারিখ ভোট দিতে যাবে তাদের নিশ্চিতভাবে ৩১ তারিখ এসে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করাটা অতিরিক্ত মানসিক ও শারীরিক চাপ সৃষ্টি করবে।

অবিলম্বে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের এহেন অগণতান্ত্রিক সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে ২৮ ডিসেম্বর থেকে ২ জানুয়ারি পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা বন্ধ রেখে বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যদিবস বন্ধ রাখার জোর দাবি জানাচ্ছি।