৩০ অক্টোবর রাষ্ট্রপতি বরাবর স্মারকলিপি পেশ করবে বাম জোট

যুগবার্তা ডেস্কঃ আগামী ৩০ অক্টোবর রাষ্ট্রপতি বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করবে বাম গনতান্ত্রিক জোট। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট রাজনৈতিক সংকট নিরসনে রাজনৈতিক দলসমূহের সংলাপের উদ্যোগ নিতে এ কর্মসূচি পালন করবে জোটটি।

আজ রাজধানীর মুক্তিভবনে জোট সমন্বয়ক ও বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হকের সভাপতিত্বে বাম গণতান্ত্রিক জোটের কেন্দ্রীয় পরিচালনা পরিষদের সভায় এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

সভায় উপস্থিত ছিলেন সিপিবি’র সাধারণ সম্পাদক মো. শাহ আলম, বাসদ-এর কেন্দ্রীয় নেতা বজলুর রশীদ ফিরোজ, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির সাধারণ সম্পাদক মোশরেফা মিশু, বাসদ (মার্কসবাদী)’র কেন্দ্রীয় নেতা মানস নন্দী, ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগ নেতা নজরুল ইসলাম, সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের আহবায়ক হামিদুল হক। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আবদুল্লাহ ক্বাফী রতন, বহ্নিশিখা জামালী, ফিরোজ আহমেদ, মোমিনুর রহমান।

সভায় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট রাজনৈতিক সংকট নিরসনে রাজনৈতিক দলসমূহের সংলাপের উদ্যোগ নিতে আগামী ৩০ অক্টোবর রাষ্ট্রপতি বরাবর স্মারকলিপি পেশ করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

৩০ তারিখ সকাল ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সমাবেশ শেষে বঙ্গভবনে গিয়ে জাতীয় নেতৃবৃন্দ রাষ্ট্রপতি বরাবর স্মারকলিপি পেশ করবেন।

সভায় অন্য এক প্রস্তাবে টোলমুক্ত সেতুর দাবিতে ২৬ অক্টোবর কেরাণীগঞ্জে পুলিশের গুলিতে পরিবহন শ্রমিক মো. সোহলের মৃত্যুতে তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়। সভায় আন্দোলনরত শ্রমিকদের উপর পুলিশ ও ইজারাদারদের সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের আক্রমণের নিন্দা জানিয়ে বিচার বিভাগীয় তদন্ত ও অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানানো হয়।

সভা থেকে ঢাকার আশুলিয়ার মির্জানগরে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র পিএইচএ ভবনে হামলা, ভাংচুর, লুটপাট, ছাত্রী হোস্টেলে হামলা, গণবিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ঝালকাঠিতে র‌্যাবের গুলিতে পা হারানো লিমনের হাত ভেঙে দেয়া, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের লাঞ্ছিত করা, স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের সম্পদ দখলের অপচেষ্টার তীব্র নিন্দা জানানো হয়। আক্রমণকারীদের প্রতিহত করার বিষয়ে পুলিশের নীরবতায় ক্ষোভ জানিয়ে গণস্বাস্থ্যের কেন্দ্রের ন্যায় একটা প্রতিষ্ঠান রক্ষায় আইন শৃংখলা রক্ষা বাহিনীকে উপযুক্ত ভুমিকা রাখার আহবান জানানো হয়।