২৬ জনু মধ্যে ঈদ বোনাস ও পরিশোধের দাবীতে শ্রমিক পতাকা র‌্যালী

52

যুগবার্তা ডেস্কঃ শুক্রবার জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের উদ্যোগে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বেলা ১১ টায় গার্মেন্টস শ্রমিক পতাকা মিছিল পূর্ব সমাবেশ শেষে একটি বর্ণঢ্য র‌্যালী গুরুত্বপূর্ণ প্রদক্ষিণ করে পুরানা পল্টন মোড়ে শেষ হয়। সমাবেশ ও র‌্যালীতে কয়েকশত শ্রমিক অংশ নেয়।
ফেডারেশনের সভাপতি আমিরুল হক্ আমিন এর সভাপতিত্বে এ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মিস শাফিয়া পারভীন, কেন্দ্রীয় নেতা মোঃ ফারুক খান, মিসেস আরিফা আক্তার, মোঃ রফিক, মোঃ ফরিদুল ইসলাম, মোঃ কবির হোসেন সহ প্রমুখ।
সংহতি বক্তব্য একতা গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারন সম্পাদক কামরুল হাসান।
বক্তারা বলেন, শ্রম কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় ২০ রমজানের মধ্যে গার্মেন্টস সহ সকল শিল্প প্রতিষ্ঠানে ঈদ বোনাস এবং বেতন ভাতা পরিশোধের নির্দেশ দিয়েছেন। ২০ রমজানের (২৬ জুন) আর মাত্র ২দিন বাকি। অনেক কারখানায় ঈদ বোনাস ও বেতন-ভাতা পরিশোধ করা নিয়ে শংশয় সৃষ্টি হয়েছে। ফলে অনেক কারখানাই ২০ রমজানের মধ্যে পরিশোধ করা হবে না–যা শ্রম মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ অমান্য করার শামিল।
তারা দুঃখ প্রকাশ করে বলেন,আশুলিয়ার হ্যান ওয়েন বিডি লিঃ এর ১৭ জন ইউনিয়ন কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন কারখানায় শ্রমিকদের বে-আইনীভাবে ছাঁটাই ও নির্যাতন চলছে। নোবেল বিজয়ী প্রফেসর ডঃ ইউনুসের মালিকানাধীন গ্রামীন নীট ওয়্যারের ছাঁটাইকৃত ১৬০ জন শ্রমিকের চাকুরীতে পূনর্বহাল অথবা টার্মিনেশনের আওতায় সমস্ত ক্ষতিপুরনের ব্যবস্থা গ্রহন ও ৮১ জন শ্রমিকের নামে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবী জানান। একই সাথে আশুলিয়ার আমির সোয়েটার এন্ড এ্যাপারেলস লিঃ এর মালিক কর্তৃপক্ষ কোন কিছু না জানিয়ে গত ০৯.০২.২০১৬ ইং তারিখে কোনরকম নোটিশ প্রদান না করে হঠাৎ করে কারখানাটি বন্ধ করে দেয়। কিন্তু শ্রমিকদের বকেয়া বেতন ভাতা ও আইনানুগ ক্ষতিপুরন পরিশোধ করে নাই।
ইউনিয়ন ধ্বংস করার জন্য ফ্রেন্ডস স্টাইল ওয়্যার লিঃ- মালিক/ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ বে-আইনীভাবে গত ২১.০৩.২০১৬ ইং তারিখ থেকে কারখানাটি বন্ধ করে দিয়েছে। ইউনিয়নটি শ্রম পরিদপ্তর থেকে ০৩.০২.২০১৪ ইং তারিখ রেজিষ্ট্রেশন লাভ করে (যার রেজিষ্ট্রেশন নং-ঢাকা-৪৮৫৩)। গত ২৯.১২.২০১৩ ইং তারিখ ও ১৬.০১.২০১৪ ইং তারিখে সভাপতি, সহ-সাধারণ সম্পাদক, কোষাধ্যক্ষ ও নারী বিষয়ক সম্পাদক সহ ৬ জন সক্রিয় ইউনিয়ন কর্মীকে বে-আইনীভাবে চাকুরীচ্যুত করে। এভাবে কারখানা কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন সময় সর্বমোট ৬০ জন শ্রমিককে বে-আইনীভাবে ছাঁটাই করেছে।
বক্তারা বাংলাদেশের শ্রম আইন ,আইএল ও কনভেনশন,আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সনদ এবং গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের পবিত্র সংবিধানকে অবজ্ঞা করে রেজিষ্ট্রিকৃত ইউনিয়ন ধ্বংসের অপচেষ্টার দায়ে ফ্রেন্ডস ষ্টাইল ওয়্যার লিঃ এর কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানান।