২০১৬-১৭ অর্থ বছরের বাজেট উন্নয়ন অভিলাশী— ওয়ার্কার্স পার্টি

164

যুগবার্তা ডেস্কঃ ২০১৬-১৭ অর্থ বছরের ঘোষিত বাজেটকে উন্নয়ন অভিলাশী হিসেবে মনে করেন ওয়ার্কার্স পার্টি। তবে উন্নয়নের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে চলমান ঘুষ-দুর্নীতি ও আর্থিক খাতের লুটপাট কঠোর হস্তে দমন করতে হবে। এ লক্ষ্যে সমাজের সর্বক্ষেত্রে সুশাসন কায়েম করতে হবে।
আজ শনিবার বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি ঢাকা মহানগর পার্টি আয়োজিত এক সমাবেশে পার্টির নেতৃবৃন্দ এ অভিমত ব্যক্ত করেন। জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মহানগর পার্টি সভাপতি কমরেড আবুল হোসাইন এর সভাপতিত্বে সমাবেশে পার্টির সাধারণ সম্পাদক কমরেড ফজলে হোসেন বাদশা, পলিটব্যুরো সদস্য নুর আহমদ বকুল, কামরূল আহসান, যুবনেতা মোস্তফা আলমগীর রতন, অ্যাডভোকেট টিপু সুলতান এমপি, মহানগর নেতা কিশোর রায়, মুর্শিদা আখতার, ছাত্র মৈত্রী সাধারণ সম্পাদক অর্নব দেবনাথ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
বিষমুক্ত খাদ্য, দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ, ঈদে নিরাপদে বাড়ী ফেরা, ঈদের পূর্বে শ্রমিক কর্মচারিদের বেতন-ভাতা পরিশোধ এবং বাজেটে নগর দরিদ্রদের জন্য সামাজিক নিরাপত্তা খাতে অধিক বরাদ্দের দাবিতে এই সমাবেশের আয়োজন করা হয়।
সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, পবিত্র রমজান এলেই অসাধু ব্যবসায়ীরা নিত্যপণ্যের দাম বাড়িয়ে দেন। এতে সাধারণ মানুষের জীবন-জীবিকা দুর্বিসহ হয়ে ওঠে। সরকারকে এ ব্যাপারে কঠোর অবস্থান গ্রহণ করতে হবে; যাতে অসাধু ব্যবসায়ীরা অনৈতিক কার্যকলাপ করতে সাহস না পায়। ২০১৬-১৭ অর্থ বছরের বাজেট সম্পর্কে মন্তব্য করতে গিয়ে বক্তারা বলেন, বাজেটে বর্তমান সরকারের উন্নয়ন দর্শনের প্রতিফলন ঘটেছে। তবে সমাজে যে বৈষম্য সৃষ্টি হয়েছে তা নিরসনে কোন কার্যকর দিক নির্দেশনা নেই। বর্তমানে সমাজে ধনী-দরিদ্র্যের বৈষম্য চরম পর্যায়ে পৌছেছে। এই বৈষম্য নিরসন করতে না পারলে সামাজিক স্থিতিশীলতা বিনষ্ট হতে পারে।
নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারিদের বেতন/ভাতা দ্বিগুণ করা হয়েছে। অথচ বাজেটে শ্রমিক কর্মচারিদের জন্য জাতীয় মজুরি কমিশন গঠনের কোন উদ্যোগ নেই। এতে করে শ্রমিক কর্মচারিদের মাঝে ক্ষোভ ও হতাশা সৃষ্টি হয়েছে। নেতারা বলেন, শ্রমিক-কর্মচারিরা হচ্ছে উৎপাদিকা শক্তি। এই শক্তিকে যদি শক্তিশালী করা না যায় তাহলে সমাজের উৎপাদন ও উন্নয়ন ব্যহত হবে। নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে শ্রমিক-কর্মচারিদের জন্য জাতীয় মজুরী কমিশন গঠন করে মজুরী বৃদ্ধির আহ্বান জানান এবং ২১ রোজার মধ্যে সকল শ্রমিক-কর্মচারির বেতন-ভাতা পরিশোধের দাবি জানান।