হবিগঞ্জে এবার হিন্দু বাড়ি দখল

65

যুগবার্তা ডেস্কঃ এবার হবিগঞ্জে এক হিন্দু পরিবারের জমি জবরদখলের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় কয়েকজনের বিরুদ্ধে। হবিগঞ্জ সদর উপজেলার তেঘরিয়া ইউনিয়নের আব্দুল্লাহপুর গ্রামের হিমাদ্রী পুরকায়স্থ’র পরিবারের সদস্যরা জানান, প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরসহ জেলা ও উপজেলা প্রশসানে বিষয়টি জানিয়েছেন তারা। কিন্তু এখনও কোনো প্রতিকার পাননি।
আব্দুল্লাহপুর গ্রামের হিমাদ্রী পুরকায়স্থ জানান, গ্রামের আলফু মিয়ার ছেলে শাহজাহান মিয়া, নুরুল ইসলাম, সামসুদ্দিন মিয়া, আফিল উদ্দিন এবং জব্বার খানের ছেলে আকরাম খানসহ কতিপয় প্রভাবশালী ব্যক্তি দীর্ঘদিন ধরে জোরপূর্বক ভোগ দখল করছেন তার বাবার (মৃত হেমেন্দ্র পুরকায়স্থ) ভিটেমাটিসহ সব সম্পত্তি।
আব্দুল্লাহপুর মৌজায় হেমেন্দ্র পুরকায়স্থের রয়েছে ৯৯ শতক ভূমি। ওই ভূমি তিনি তার বাবা হরলালের কাছ থেকে উত্তরাধিকার সূত্রে পান বলে জানান হিমাদ্রী। হিমাদ্রী বলেন, হেমেন্দ্রের মৃত্যুর পর তার নাবালক সন্তান হিমাদ্রী ও স্ত্রী কনা রানীর অসহায়ত্ব ও আর্থিক অস্বচ্ছলতার সুযোগে ‘জাল দলিল’ করে পরিবারটির সর্বস্ব গ্রাস করে ওই প্রভাবশালীরা। হিমাদ্রী জানান, প্রাপ্তবয়ষ্ক হওয়ার পর তিনি উল্লেখিত পরিমাণ ভূমি তার নামে নামজারি করেছেন। কিন্তু তারপরও প্রভাবশালীদের কারণে ভোগ দখল করতে পারছেন না তিনি। এর প্রতিকার চেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, জেলা প্রশাসক, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর বারবার আবেদন-নিবেদন করেও কোনো সাড়া পাননি বলে জানান তিনি।
আদালতে যাননি কে প্রশ্ন করা হলে হিমাদ্রী বলেন, আর্থিক অস্বচ্ছলতার কারণে আদালতের আশ্রয় নিতে পারছেন না তিনি। তিনি পৈত্রিক সম্পত্তি ফিরে পেতে সমাজের বিবেকবান মানুষের সহযোগিতা কামনা করেন। এ ব্যাপারে সামসুদ্দিন মিয়া বলেন, তারা হিমাদ্রীর বাবা হেমেন্দ্রের কাছ থেকে জমিটি কিনে নিয়েছেন নব্বইয়ের দশকের প্রথমদিকে। লিখিত দলিল হলেও তখন তারা দলিল রেজিস্ট্রি করেননি বলে জানান সামসুদ্দিন। এ ব্যাপারে সদর উপজেলা সহকারী ভূমি কর্মকর্তা অমিতাভ পরাগ তালুকদার জানান, উল্লেখিত ভূমি ব্যক্তি মালিকাধীন। তাই এটি আমাদের এক্তিয়ারভুক্ত নয়। তিনি জানান এ বিষয়ে আইনের আশ্রয় নিলে হিমাদ্রী প্রতিকার পেতে পারেন।