হজে গিয়ে দেশে ফেরেনি সাড়ে তিন হাজার বাংলাদেশি

যুগবার্তা ডেস্কঃ দুই সপ্তাহ আগে ফিরতি হজ ফ্লাইট শেষ হলেও হজ করতে গিয়ে তিন হাজার ৬২১ জন বাংলাদেশী দেশে ফেরেননি। তবে সিডিউল ফ্লাইটের পাশাপাশি থার্ড ক্যারিয়ারে এখনও হাজিরা ফিরছেন জানিয়ে ধর্ম সচিব মো. আব্দুল জলিল বলছেন, সবাই দেশে ফিরবেন বলে আশা করছেন তিনি।
চূড়ান্তভাবে কতজন সৌদি থেকে ফিরছেন না তা সীগ্রই জানা যাবে। গত ৪ আগস্ট থেকে ৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স ও সৌদিয়া এয়ারলাইন্সের ২৯৯টি ফ্লাইটে বাংলাদেশের এক লাখ এক হাজার ৭৫৮ জন সৌদি যান। গত ১৭ সেপ্টেম্বর শুরু হয়ে ১৭ অক্টোবর ফিরতি হজ ফ্লাইট শেষ হয়েছে।
ধর্ম সচিব বৃহস্পতিবার জানান, ২০ অক্টোবর পর্যন্ত ৯৮ হাজার ১৩৭ জন হাজি দেশে ফিরেছেন। কিছু থার্ড ক্যারিয়ার ও সিডিউল ফ্লাইটে (সৌদি-ঢাকা) দেশে ফিরছেন।
বাংলাদেশ থেকে হজ করতে সৌদি গিয়ে প্রতি বছরই কিছু মানুষ সেখানে থেকে যান। অনেকে হজ শেষে সরাসরি দেশে না ফিরে বিদেশে থাকা আত্মীয়-স্বজনদের সঙ্গে দেখা করে কয়েক মাস পর দেশে ফেরেন।
বাংলাদেশ থেকে হজে যাওয়াদের মধ্যে দুই শতাংশের বেশি মানুষ দেশে না ফিরলে তা মানবপাচার হিসেবে গণ্য করে সৌদি সরকার।
এবার বাধ্যতামূলকভাবে মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট নিয়ে (এমআরপি) হজ করতে সৌদি যাওয়ায় সেখানে থেকে যাওয়ার সম্ভাবনা নেই বলেই মনে করছেন আব্দুল জলিল।
তিনি বলেন, “যদি কেউ থেকেও থাকে তাহলে যে এজেন্সি নিয়েছে হয়ত সেও জানবে না। কারণ কেউ যদি সৌদি গিয়েই পালিয়ে যায় তাহলে অন্য বিষয়।”
একটি এজেন্সি লিখিতভাবে তাদের মাধ্যমে সৌদি যাওয়া একজন হাজিকে খুঁজে না পাওয়ার কথা বুধবার জানিয়েছে বলে জানান জলিল।
তিনি বলেন, ২৫ অক্টোবরের পর সৌদি ইমিগ্রেশন তথ্য দিলে জানা যাবে কতজন হাজি দেশে ফেরেননি। সৌদির হাসপাতালে এখনও ৫০ জন হাজি চিকিৎসা নিচ্ছেন।
হজ করতে সৌদি গিয়ে এবার ৮৫ জন বাংলাদেশি মারা গেছেন জানিয়ে সচিব জলিল বলেন, সাধারণত সৌদিতে যারা মারা যান তাদের পরিবারের সদস্যদের ইচ্ছা অনুযায়ী সেখানেই দাফন করা হয়। “তবে কেউ লাশ দেশে আনতে চাইলে সরকার ব্যবস্থা করে দেয়। এবার এখনও কেউ লাশ দেশে আনতে চেয়ে আবেদন করেননি।”