সৌদিয়ারবে শুক্রবার ঈদ পালিত হয়

69

মফিজুর রহমান কবির : শুক্রবার সৌদি আরবে ঈদ পালন করেছে। পবিত্র মক্কার মিনা থেকে প্রায় ৯ মাইল পূর্ব দিকে ‘জাবালে রহমতের পাহা(ড়’র সন্নিকটে ফজরের নামাজ মিনায় আদায় শেষে হাজীরা ইহরাম বাঁধা অবস্থায় ছুটেন আরাফার ময়দানে। আল্লাহর মেহমান সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত আরাফার ময়দানে আল্লাহর সন্তিষ্টি অর্জনের লক্ষে) বিশ- লক্ষাধিক হাজ্বী – ‘লাব্বাইকা আল্লাহুম্মা লাব্বাইক-লাব্বাইকা লা শারিকা লাকা লাব্বাইক-ইন্নাল হামদা ,ওয়া ইননি’মাতা, লাকা ওয়াল মুলক’ ধ্বনি তুলে আল্লাহর নৈকট্য লাভে আরাফার ময়দানে অবস্থান করেন এবং যে যেখানেই যার যার অবস্থান বসে বা দাড়িয়ে ইবাদত করবেন- তারা নিজেদের পাপের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা কবেন , নিজের পরিবার-পরিজন, সমাজ ও রাষ্ট্রের সুখ শান্তির জন্য আল্লাহর কাছে দোয়া করেন।,।এখনই আল্লাহর মেহমানরা নিজেদের ও বিশ্ব মুসলিম মানব মুক্তির কল্যানে দোয়া করবেন৷আজ দিনভর আরাফার ময়দানে রাব্বুল আলামিনের অনুভব ও অনুভূতি লাভ করবেন । জীবনের সমস্ত গোনাহর বর্ণনা দিয়ে গোনাহ মুক্তির জন্য ক্ষমা প্রাথনা করবেন আর বলবেন লাব্বাইক আল্লাহুমা লাব্বাইক-এর অর্থ হচ্ছে আমি হাজির, আমি হাজির এবং আল্লাহর প্রসংসায় মগ্ন থাকবেন , আরাফার ময়দানে দাঁড়িয়েই মহা নবী হজরত মুহাম্মদ (সা.) চৌদ্দশ বছর আগে ঐতিহাসিক বিদায় হজ্বের ভাষণ দিয়েছিলেন। আজো সেই ধারাবাহিকতায় খুতবা-ভাষণ দেয়া হয়। আজ এখান থেকেই মুসলিম উম্মাহর ঐক্য, সংহতি ও ভ্রাতৃত্বের দীক্ষানিয়ে ফিরবেন মুজদালিফায় ,হাজ্বীরা সারা রাত সেখানে অবস্থান করবেন ,মাগরিবের নামাজ ও এশার নামাজ আদায় ও কঙ্কর সংগ্রহ করে ফজরে মিনায় শয়তানে উদ্দেশ্যে পাথর নিক্ষেপ করার জন্য । ইহরামের কাপড় পরে মহান আল্লাহর সান্নিধ্য লাভের জন্য ব্যাকুল থাকবেন তারা। হজ্ব অর্থ সংকল্প করা, দর্শন করা। আল্লাহর ভালবাসার নিদর্শন হচ্ছে হজ্ব। কাবা শরিফের তাওয়াফ, উকুফে আরাফা,মুজদালিফা, হাজরে আসওয়াদ, জমজম, মাকামে ইবরাহিমের সায়ী,জামারাত কোরবানি, বিদায়ী তওয়াফ’ এগুলো মুমিনের জন্য রাব্বুল আলামিনের সান্নিধ্যস্থল। কাবা শরিফের হ্জ্ব মুসলিম জাতির পিতা হজরত ইবরাহিম (আ.)-এর আদর্শ ও চেতনার প্রতীক ।আল্লাহর মেহমান গণ এখন মুযদালিফায় অবস্থান করছেন ।
১ লাখ ২৭ হাজার জন বাংলাদেশি হাজ্বী মিনা থেকে আরাফাত ময়দান হয়ে মুজদালিফায় অবস্থান করছেন। তবে প্রচণ্ড গরম অনেক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে জানা গেছে ।

এবারের হজ্বে সৌদি সরকার বিদেশি হাজ্বী ও মেহমানদের সংখা নির্দিষ্ট করেন ১৭৩৫৩৯১জন ।তাদের মধ্যে -বিমান যোগে ১৬৩১৯৭৯ জন ,সমুদ্র পথে -১৪৫৮৫জন ,স্থল পথে -৮৮৫৮৫ জন ।পবিত্র হজ্বকে ঘিরে মক্কা, মদিনা, মিনা, আরাফাত ময়দান, মুজদালিফা এবং এর আশপাশের এলাকায় বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছেন সৌদি সরকার।