সুস্থ্য-দীর্ঘ জীবনে যোগ অপরিহার্য–শাজাহান খান এমপি

স্টাফ রিপোটারঃ আমাদের জীবনের সুস্থতায় যোগ ব্যায়ামের ভুমিকা অপরিহার্য। আর প্রতিদিন অল্প সময় চর্চা করেও সারাদিন সুস্থ ও চনমনে থাকা যায় তা জানলাম আনন্দম্ ইনস্টিটিউট অব যোগ এণ্ড যৌগিক চিকিৎসার এই অনুষ্ঠানে তাতে আমি নিজেও যোগ চর্চা করতে আগ্রহী। বললেন সাবেক নৌ পরিবহন মন্ত্রী, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলী সদস্য ও বীর মুক্তিযোদ্ধা শাজাহান খান এমপি।
আজ ২১ জুন (মঙ্গলবার) বিকেল ৪ ঘটিকায় রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের তৃতীয় তলায় আনন্দম্ ইনস্টিটিউট অব যোগ এণ্ড যৌগিক চিকিৎসা আয়োজিত “বিনা ঔষধে রোগ প্রতিরোধ, নিরাময় ও দীর্ঘায়ু লাভের উপায়” শীর্ষক যোগ সভার প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
সাবেক নৌমন্ত্রী বলেন,যারা বেশী খাবার খায় তারা খুব কম সময় বাঁচে। আর যারা পরিমিত খাবার খায় তারা দীর্ঘদিন বাঁচে। এই পরিমিত খাবার খাওয়া যোগ ব্যায়ামের একটি অংশ।
আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আরও বলেন, আমি ৭৩ বছর বয়সেও হাঁটি কিন্তু না হাঁপিয়ে কিভাবে বেশি হাটা যায় এবং সেই হাটার মাধ্যমে রোগ মুক্ত থাকা যায় এমন কৌশল যোগ সভায় এসে শিখতে পেরেছি। এত কম সময়ে সহজ সরল ভাবে যোগের ব্যবহারিক বিষয় গুলো ধারণা দিয়েছে যা সত্যি আমাকে মুগ্ধ করেছে। এতে যোগ শিক্ষার বিষয়ে আগ্রহ বেড়েছে তাই আমি প্রকাশ্যে বলছি সুযোগ পেলে আমিও আনন্দম ইনস্টিটিউট এর সাথে যোগ চর্চা করতে চাই। সেই সাথে সবাইকে আহব্বান জানাই সুস্থ থাকতে যোগের প্রচার প্রসারে আনন্দম ইনস্টিটিউট এর পাশে সকলকে দাঁড়াতে।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জনাব মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি বলেন, এই যোগ সভায় এসে উপস্থাপিকা রাইকিশোরী দিদিমনির কাছ থেকে জানলাম আমরা ১০-১৫ মিনিট চর্চা করেও ভালো ও সুস্থ থাকতে পারি। তিনি যদি বলতেন ২ ঘণ্টা করতে তবে আমি আর শুনতাম না কারণ আমাদের এত সময় বের করা খুব মুশকিল। কে না চায় সুস্থ থাকতে তাই আমিও আগ্রহী হলাম। আমাদের চলার পথে যোগভ্যাস অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়।
সভাপতির বক্তব্য যোগী পিকেবি প্রকাশ বলেন, ঔষধের উপর নির্ভরশীল হয়ে ক্রমান্বয়ে মৃত্যুর দিকে ঝুঁকে পড়তে হয়। কিভাবে রোগ জীবাণু থেকে নিজেকে মুক্ত রেখে সুস্থভাবে দীর্ঘ জীবন লাভ করা যায় এই উদ্দেশ্যে আনন্দম ইনস্টিটিউট অব যোগ নামক প্রতিষ্ঠান চালু করা হয়েছে। করোনা মহামারীর সময়ে বিনা ঔষধে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ করে আক্রান্ত রোগীকে সুস্থ করেছি। এটাই যৌগিক চিকিৎসার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত।
তিনি আরও বলেন, আমাশয়, ডায়েরিয়া ও অজীর্ণসহ পেটের যাবতীয় অসুখ অতি দ্রুত আরোগ্য করে বস্তিক্রিয়া ও সহজ অগ্নিসার ক্রিয়ায়। ভ্রমণ প্রাণায়াম ও সহজ প্রাণায়ামে সর্দি, কাশি, ইনফ্লুয়েঞ্জা প্রভৃতি রোগ অনায়াসে তাড়াতাড়ি ভালো করে। প্রাণায়াম অভ্যাস থাকিলে জ্বররোগ কখনো দেহকে আক্রমন করিতে পারে না। এই সহজ প্রাণায়ামাদি টাইফয়েড, নিউমোনিয়া এবং যক্ষ্মা প্রভৃতি রোগেরও অব্যর্থ প্রতিষেধক। রক্তচাপ বৃদ্ধি, হৃদরোগ প্রভৃতি প্রাণঘাতী রোগও যৌগিক পন্থায় অল্পায়াসে ভালো হয়।
সম্মানিত অতিথির বক্তব্যে ডঃ জে কে পাল বলেন, খাবার ও যোগাভ্যাস মানুষের জীবন সুস্থতা এনে দিতে পারে। ভারতের কাশ্মীর পাকিস্তান সীমান্তে একটা গ্রামে কোন ঔষধ ব্যবহার করতে হয় না। তারা সবসময় প্রাণীজ প্রোটিন গ্রহণ করে না। উদ্ভিজ প্রোটিন যুক্ত খাবার খাওয়ার কারণে তারা নিরোগ ও দীর্ঘ জীবন বাঁচে।
যোগবিদ ডঃ জে কে পাল বলেন, যত মহাপুরুষ বেশীদিন বেঁচে ছিল তাদের একটি কারণ যোগাভ্যাস। যোগাভ্যাসের কারণে শ্বাসের গতি বাড়াতে কমাতে পারা যায়। যে যত বেশি সময় শ্বাস ধরে রাখতে পারে সে তত বেশি দিন বাচতে পারে। প্রাণায়াম দীর্ঘায়ু লাভের অন্যতম উপায়।
ইন্ডিয়ান মিডিয়া করেসপন্ডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ এর সভাপতি বাসুদেব ধর বলেন, বেশিভাগ মানুষ যোগ বিদ্যাকে সনাতন রীতি বলে মনে করা হয়। কিন্তু বর্তমান সময় সুস্থ থাকতে মানুষ যোগের গুরুত্ব বুঝতে পারছে। তাই মুসলিম অধ্যুসিত দেশ আবুধাবিসহ অনেক মুসলিম দেশ এমনকি বর্তমানে বাংলাদেশের অনেক সচেতন মুসলমানেরাও সুস্থ থাকতে যোগ চর্চা করে।
উক্ত যোগ সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি মণ্ডলী সদস্য জনাব শাজাহান খান এমপি, বিশেষ অতিথি হিসেবে মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি, বাংলাদেশ কৃষক লীগের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আশালতা বৈদ্য, ইন্ডিয়ান মিডিয়া করেসপন্ডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ এর সভাপতি বাসুদেব ধর, ভারত সেবাশ্রম সংঘ ঢাকা অধ্যক্ষ স্বামী সংগীতানন্দ মহারাজ, বিশিষ্ট যোগ বিশারদ ডঃ জে কে পাল, এডভোকেট সুনীল বিশ্বাস, সম্মানিত অতিথি হিসেবে ইন্টার রিলিজিয়াস রাইটার এণ্ড জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন এর সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা চিত্ত ফ্রান্সিস রিবেরু,ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সহ-সভাপতি মানিক লাল ঘোষ প্রমুখ।
সভাপতিত্ব করেন আনন্দম্ ইনস্টিটিউট অভ যোগ এণ্ড যৌগিক চিকিৎসা এর পরিচালক যোগী পিকেবি প্রকাশ(প্রমিথিয়াস চৌধুরী)।