সুপ্রিম কোর্টের সামনের ভাস্কর্য অপসারিত

69

যুগবার্তা ডেস্কঃ সুপ্রিম কোর্টের সামনে থেকে ন্যায়বিচারের প্রতীক ভাস্কর্য জাস্টিসিয়া সরিয়ে নেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত ১১টার পরে সুপ্রিম কোর্ট কর্তৃপক্ষ ভাস্কর্য সরিয়ে নেয়ার কাজ শুরু করে।
জানা গেছে, আপাতত সুপ্রিম কোর্টের সামনে থেকে ভাস্কর্যটি সরিয়ে অ্যানেক্স ভবনের সামনে স্থাপন করা হতে পারে।
আইনশৃংখলা বাহিনীর উপস্থিতিতে রাতে ভাস্কর্যটি সরিয়ে নেয়ার কাজ শুরু করে। সরানোর কাজ শেষ করতে প্রায় ৬ ঘন্টা সময় লেগে যায়।
ভাস্কর্যটি সরানোর খবর পেয়ে সুপ্রিম কোর্টের সামনে চলে আসেন এর ভাস্কর মৃণাল হক। এ সময় তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন।
মৃণাল হক সাংবাদিকদের কান্নাজড়িতকন্ঠে বলেন, আমার কিছু করার নেই, আমার হাত-পা বাধা। এর পীছনে বড় হাত রয়েছে। ‘
তিনি আআরও বলেন, এরপর নির্দেশ আসবে, ‘অপরাজেয় বাংলা’ ভাঙা হোক, ‘রাজু ভাস্কর্য’ ভাঙা হোক, ‘ঘোড়ার গাড়ি’ ভাঙা হোক.. মাফ চাই। আমি কিছু বলতে চাই না।
ভাস্কর্যটি অপসারনের সংবাদ ছাত্র-তরুনসহ বিভিন্ন স্তরের জনতা ভিড় করেন। এসময় ভাস্কর্যটি সরানোর ক্ষোভ প্রকাশ করেন। কিছু প্রতিবাদকারী সুপ্রিম কোর্টের মুল গেটে ধাক্কাধাক্কি করলে কিছু সময়ের জন্য কাজে ব্যঘাত ঘটে। পরে আইনশৃংখলা বাহিনীর সংখ্যা বৃদ্ধি করা হয়।
সুপ্রিম কোর্ট চত্বরে স্থাপন করা এই ভাস্কর্য নিয়ে দেশে ইসলামিক দলগুলো বিভিন্ন সময় নানা কর্মসূচি পালন করেছে। এছাড়া প্রধানমন্ত্রী নিজেও ভাস্কর্যটি অপসারণ করার জন্য কোর্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান।
ধারণা করা হচ্ছে, ভাস্কর্যটি পুরোপুরি ধ্বংস না করে তা সরিয়ে নেওয়া হবে।