Home রাজনীতি সিলেটের চার জেলার বিএনপি নেতাকর্মীদের আইনি সহায়তা দিচ্ছে রফি’র সেল

সিলেটের চার জেলার বিএনপি নেতাকর্মীদের আইনি সহায়তা দিচ্ছে রফি’র সেল

77

স্টাফ রিপোটার: সরকারবিরোধী আন্দোলন করতে গিয়ে মামলা-হামলার শিকার সিলেট বিভাগের চার জেলার বিএনপি নেতাকর্মীদের বিনামূল্যে আইনি সহায়তা দিচ্ছে ‘সিলেট বিভাগ আইন সহায়তা সেল’। গত চার মাসে দুই শতাধিক বিএনপি নেতাকর্মীকে আইনি সহায়তা দিয়েছে এই সেল। মানবিক সহায়তা দেয়ার জন্য এই সেলটি গঠন করেন লন্ডন প্রবাসী তরুণ রাজনীতিবিদ রফি আহমেদ চৌধুরী। সিলেট বিভাগের চার জেলায় চারজন আইনজীবীকে সেলের প্রতিনিধি হিসেবে নিয়োগ দেন তিনি। চার আইনজীবীর নেতৃত্বে ওই সেলে কাজ করছেন আরও ৩০ আইনজীবী। প্রতিদিনই বিএনপি নেতাকর্মীদের জামিনের শুনানি করছেন এই সেলের প্রতিনিধিরা। আইনি সহায়তা ছাড়াও কারাবন্দি অনেক নেতাকর্মীকে জেলখানার পিসিতে নিয়মিত টাকা দেয়ার পাশাপাশি নেতাকর্মীদের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেয়া হচ্ছে এই সেল থেকে। সার্বক্ষণিক মনিটরিংয়ের পাশাপাশি সেলের সার্বিক সহায়তা দিচ্ছেন রফি চৌধুরী। আন্দোলনে আহত হওয়া নেতাকর্মীদের চিকিৎসার ব্যবস্থাও করছেন তিনি। এছাড়া রাজনৈতিক নেতাদের ছাড়াও অসহায় সাধারণ মানুষকে মানবিক সহায়তা দিয়ে যাচ্ছেন বিয়ানীবাজারের এই যুবক।

আইন সহায়তা সেলের সিলেট জেলা প্রতিনিধি এডভোকেট মামুন আহমেদ রিপন বলেন, গত চার মাসে অন্তত অর্ধশতাধিক বিএনপি নেতাকর্মীকে আইনি সহায়তা দেয়া হয়েছে এই সেল থেকে। এরমধ্যে জামিনে মুক্তি পেয়েছেন ১১ জন নেতাকর্মী। তিনি আরও বলেন, আমাদের সেল থেকে জামিনের পাশাপাশি কোর্টে আনা নেতাকর্মীদের খাবার দেয়া, পিসিতে টাকা দেয়া হচ্ছে।

৬ই অক্টোবর গ্রেপ্তারের পর ২৩শে জানুয়ারি কারাগার থেকে জামিনে মুক্তি পান গোলাপগঞ্জ থানা বিএনপি নেতা মুজিবুর রহমান দুলাল। দুলালের ছোটভাই আবদুল খালেক জানান, আমার ভাই গ্রেপ্তারের পর থেকে তার পরিবারের খোঁজখবর নেয়ার পাশাপাশি সার্বিক সহযোগিতা দিয়েছেন রফি ভাই। এছাড়া আমার ভাইয়ের জামিন করার সব খরচও তিনি বহন করেন। এখনো আমার পরিবারের খোঁজখবর নিচ্ছেন। ২রা নভেম্বর গ্রেপ্তারের পর ১৮ই জানুয়ারি কারাগার থেকে মুক্তি পান গোলাপঞ্জ পৌর স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য সচিব তাজউদ্দিন। তিনি বলেন, শুধু আমার মামলা নয়, আমার অনেক সহকর্মীর মামলার খরচ দিয়েছেন রফি ভাই। এমন কি কারাগার থেকে বের হওয়ার পরও খোঁজখবর নিয়েছেন তিনি। আইন সহায়তা সেলের সুনামগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি এডভোকেট সিদ্দিকুর রহমান স্বপন বলেন, আমার জেলা থেকে অর্ধশতাধিক নেতাকর্মীকে আইনি সহায়তা দেয়া হয়েছে এই সেল থেকে। এর মধ্যে ২৫ জনের মতো জামিন পেয়েছেন। অনেককে আইনি পরামর্শ দেয়া হয়েছে। যাদের নিম্ন আদালতে জামিন হয়নি তাদের জজ কোর্ট কিংবা উচ্চ আদালত থেকে জামিনের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

সেলের হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি এডভোকেট আফজাল হোসাইন জানান, হবিগঞ্জের ৮টি থানায় বিএনপি নেতাদের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া ১৫টি মামলায় ৬৫ জন নেতাকর্মীকে আইনি সহায়তা দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে ৪৮ জামিনে মুক্তি পেয়েছেন। উচ্চ আদালত থেকেও অনেককে জামিন করানো হয়েছে। এসব নেতার মুক্তির ক্ষেত্রে আর্থিক সহায়তা দিয়েছেন রফি চৌধুরী।
সেলের মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি এড. দানিয়েল আহমেদ বলেন, জেলার গ্রেপ্তার হওয়া বিএনপি নেতাকর্মীদের আইনি সহায়তা দেয়া হয়েছে এই সেল থেকে। এরমধ্যে জামিনে মুক্তি পেয়েছেন অনেকে।
সেলের তত্ত্বাবধায়ক রফি আহমেদ চৌধুরী বলেন, বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা দীর্ঘ দেড়যুগ ধরে অব্যাহতভাবে হামলা-মামলার শিকার। সবচেয়ে নাজুক পরিস্থিতি দলের তৃণমূলে। তাদের ব্যাবসা-বাণিজ্য, চাকরি-বাকরি, আয়-রোজগার না থাকলেও একাধিক মামলার বোঝা আছে প্রত্যকের। আর্থিক অনটনে অনেকের সংসার চলে না। তৃণমূল নেতাকর্মীদের এমন দুর্দশা দেখে আমরা তাদের পাশে দাঁড়ানোর উদ্যোগ নিই। তাদের আইনি সহায়তা দিতে এই সেল গঠন করি। আমরা এই সেলের সহায়তা কার্যক্রম অব্যাহত রাখব।
সিলেট জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এমরান আহমেদ চৌধুরী বলেন, আন্দোলনের শুরু থেকেই বিএনপি নেতাকর্মীদের নানাভাবে সহায়তা দিয়েছেন রফি চৌধুরী। শুধু সিলেট নয় এর বাইরে বেশ কয়েকটি জেলার নেতাদের আইনি দিয়েছেন তিনি। এর পাশাপাশি আমাদের সিলেট জেলা বিএনপি থেকে গঠিত সহায়তা সেল থেকেও সাড়ে তিনশ’ নেতাকর্মীকে আইনি সহায়তা দেয়া হয়েছে।