সার্ক সম্মেলনে বাংলাদেশের অংশগ্রহণের অপেক্ষায় পাকিস্তান

64

যুগবার্তা ডেস্কঃ যুদ্ধাপরাধের বিচার নিয়ে পাকিস্তানের প্রতিক্রিয়া এবং দেশটির এক কূটনীতিকের জঙ্গি সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ নিয়ে দু’দেশের কূটনৈতিক টানাপড়েনের মধ্যে পাকিস্তানে অনুষ্ঠিতব্য আসন্ন সার্ক সম্মেলনে বাংলাদেশের অংশ গ্রহণে অনিশ্চয়তার বিষয়টি বেশ আলোচিত হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে পাকিস্তানের তথ্য ও সম্প্রচার এবং জাতীয় ঐতিহ্য বিষয়ক মন্ত্রী সিনেটের পারভেজ রশিদ বলেছেন, ‘আসন্ন সার্ক সম্মেলনে বাংলাদেশের অংশগ্রহণের জন্য আমরা অধীর আগ্রহে অপেক্ষায় আছি।’
বৃহস্পতিবার ইসলামাবাদে বাংলাদেশের গণমাধ্যম প্রতিনিধিদলের সঙ্গে এক বৈঠকে পাকিস্তানী মন্ত্রী এ কথা বলেন।
বৈঠকে বাংলাদেশের গণমাধ্যম প্রতিনিধিদের পাক মন্ত্রী বলেন, ‘মধ্য এশিয়ায় পণ্য পরিবহনে বাংলাদেশকে সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা দিতে পাকিস্তান প্রস্তুত।’
পাক তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘অতীত ঘাটাঘাটির পরিবর্তে আমাদের উচিত সম্মিলিত প্রচেষ্টা তৈরি করা এবং সন্ত্রাসবাদ, চরমপন্থা, দরিদ্রতা ও সুশাসনসহ যাবতীয় চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় একটি আঞ্চলিক প্রতিক্রিয়া বিকশিত করা। তিনি এ অঞ্চলের জনগণের সমৃদ্ধি ভাগাভাগির জন্য বাংলাদেশকে সামনে এগিয়ে যাওয়ার অনুরোধ করেন।
বৈঠকে পাকিস্তানের ফেডারেল মন্ত্রী জনগণের কল্যাণে ও আঞ্চলিক সমৃদ্ধির জন্য মুখোমুখি হওয়া এড়িয়ে চলতে দক্ষিণ এশিয় দেশগুলোর প্রতি আহবান জানান। সেইসঙ্গে এ অঞ্চলের কল্যাণে সহযোগিতার নীতি অন্বেষণের অনুরোধ করেন।
পাক মন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশের সঙ্গে পাকিস্তানের সম্পর্ক অতিশয় মূল্যবান। কেননা দু’দেশই সাধারণ ধর্মীয় মূল্যবোধ ও ইতিহাস লালন করে।
দু’দেশের মধ্যে সাংস্কৃতিক বিনিময়ে প্রোগ্রামাররা অতীব গুরুত্বপূর্ণ বলে উল্লেখ করেন সিনেটর পারভেজ রশিদ। তিনি শিল্প, সংস্কৃতি ও সঙ্গীতের ক্ষেত্রে ‘জনগণ টু জনগণ’ একে অপরের অভিজ্ঞতা বিকাশ ও সর্বোত্তম অনুশীলনের ওপর গুরুত্বারোপ করেন।
এক প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী বলেন, তিনি ভালবাসা নিয়েই বাংলাদেশে সফর করবেন। আসন্ন সার্ক সম্মেলনে বাংলাদেশের অংশগ্রহণের জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষায় আছেন বলে জানান। চলতি বছর পাকিস্তানে সার্ক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।
বাংলাদেশের গণমাধ্যম প্রতিনিধিরা মন্ত্রীকে উষ্ণ অভ্যর্ত্থণা জানান এবং গণমাধ্যম প্রতিনিধি দলের বিনিময়ের ওপর গুরুত্বারোপ করেন। এছাড়াও তারা পাকিস্তানে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা দেয়ায় প্রশংসা করেন।মমিনুল ইসলাম, আমাদের সময়.কম