সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে ব্লাসফেমি উপাদান মুছে ফেলার নির্দেশ

যুগবার্তা ডেস্ক: পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে ধর্মবিরোধী লেখা ও অন্যান্য বিষয়বস্তু মুছে ফেলার নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ব্লাসফেমি (ধর্ম নিন্দা অথবা ঈশ্বর নিন্দা) একটি অমার্জনীয় অপরাধ। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্লাসফেমি উপাদান পোস্টকারীদেরকে খুঁজে বের করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে ব্যবস্থা নিতে বলেছেন তিনি। খবর ডনের।
পাকিস্তানের এই প্রধানমন্ত্রী দায়ী ব্যক্তিদেরকে কোনো ধরনের বিলম্ব ছাড়া দ্রুত বিচারের আওতায় আনারও নির্দেশ দিয়েছেন। পাক প্রধানমন্ত্রীর সরকারি টুইটার অ্যাকাউন্ট ‘পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজ’ থেকে এক বিবৃতি দেয়া হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে ব্লাসফেমি উপাদান সরিয়ে ফেলতে কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। ভবিষ্যতে যাতে এ ধরনের কোনো উপাদান পোস্ট করা না হয় তা নিশ্চিত করতে ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেছেন তিনি।

নওয়াজ শরীফ বলেছেন, ‘সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ধর্মবিরোধী বিষয়বস্তু দেয়াটা হচ্ছে আইনবহিঃর্ভূত ষড়যন্ত্র। পুরো মুসলিম জাতির ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানাই এর লক্ষ্য।’

এছাড়া ব্যক্তিগত উদ্দেশ্যে যারা ব্লাসফেমি আইনের অপব্যবহার করছে তাদের জবাবদিহীতা নিশ্চিত করারও নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘মহানবী (সাঃ) এর জন্য ভালোবাসা এবং আবেগ প্রত্যেক মুসলমানের সবচেয়ে মূল্যবান সম্পদ।’

পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ধর্মবিরোধী বিষয়বস্তুর বিরুদ্ধে ও অপরাধীদের অবিলম্বে বিচারের মুখোমুখি করতে প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা গ্রহণে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চৌধুরী নিসার আলি খানকে নির্দেশ দিয়েছেন। ঘৃণ্য এই কাজের মূলোৎপাটনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।