সামরিক শাসনের জজ্ঞাল সরানোর সংগ্রামেও পেশাজীবিদের ভূমিকা প্রয়োজন- শিরীন আখতার এমপি

যুগবর্তা ডেস্কঃ ৯০ এর গণঅভ্যূত্থানের মহান শহীদ, জাসদ নেতা ডা. শামসুল আলম খান মিলন স্মরণে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে শনিবার সকালে বঙ্গবন্ধু এভিনিউস্থ শহীদ কর্নেল তাহের মিলনায়তনে জাসদের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন। জাসদ সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার, জাসদ সহ-সভাপিত ও ঢাকা মহানগর জাসদের সমন্বয়ক মীর হোসাইন আখতার, জাসদ সহ-সভাপতি ইকবাল হোসেন খান, জাসদ সহ-সভাপতি হাবিবুর রহমান শওকত, উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য এবং বাংলাদেশ আনবিক শক্তি কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান ডা. এম এ করিম, জাসদ সহ-সভাপতি ও জাসদ ঢাকা মহানগর উত্তর সভাপতি শফিউদ্দিন মোল্লা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নাদের চৌধুরী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও জাতীয় শ্রমিক জোট-বাংলাদেশের সাধারণ সম্পাদক নইমুল আহসান জুয়েল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও যুব জোটের সভাপতি রোকনুজ্জামান রোকন।
শিরীন আখতার এমপি তার বক্তব্যে বলেন, সামরিক শাসনের জঞ্জাল পরিস্কার করে বাংলাদেশকে মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশের পথে এগিয়ে নিতে হবে। সামরিক শাসন বিরোধী গণতান্ত্রিক সংগ্রামে পেশাজীবিদের যে ঐতিহাসিক ভূমিকা ছিল, সামরিক শাসনের জজ্ঞাল সরানোর সংগ্রামেও পেশাজীবিদের সেই ভূমিকা প্রয়োজন। বহু প্রশ্নেই রাজনীতিকরা আপস করতে পারেন, কিন্তু পেশাজীবিরা কখনই বিবেক বন্ধক রাখতে পারেনা।যে সমাজে পেশাজীবিরা ন্যায়-সত্য-সুন্দর-যুক্তির প্রশ্নে কথা বলে না, সে সমাজ থেকে অন্ধকার দুর করা কঠিন হয়। শিরীন আখতার এমপি বলেন, দেশের প্রধান বিপদ জঙ্গী ও জঙ্গীর-সঙ্গি নির্মূল করার জাতীয় কর্তব্য পালনের পাশাপাশি সুশাসন ও সমাজতন্ত্রের পথে দেশকে এগিয়ে নেয়ার সংগ্রামে জাসদ সামনের কাতারে ভূমিকা রাখছে। আর জাসদের এ সাহসী ভূমিকার পিছনে রয়েছে ডাঃ মিলনসহ জাসদের শত শত শহীদ।