সাতক্ষীরা-খুলনা মহাসড়কের দুই ধারের তিনদিন ব্যাপি উচ্ছেদ অভিযান শেষ

প্রতাপ হোড়, সাতক্ষীরা: তৃতীয় দিনের মত সাতক্ষীরা-খুলনা মহাসড়কের দুই ধারে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান শেষ হয়েছে। বৃহষ্পতিবার সকাল থেকে সাতক্ষীরা শহরের আমতলা মোড় থেকে বাকাল ব্রীজ পর্যন্ত এই অভিযান পরিচালনা করা হয়। এর আগে মঙ্গলবার সকালে তালা উপজেলার পাটকেলঘাটা থেকে ও বুধবার সদর উপজেলার বিনেরপোতা থেকে এ উচ্ছেদ অভিযান শুরু হয়।
অভিযানে নেতৃত্ব দেন, সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজ) খুলনা জোনের ম্যাজিস্ট্রেট ও আইন কর্মকর্তা অনিন্দিতা রায়। এসময় সাতক্ষীরা সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মুহাম্মদ জিয়াউদ্দীনসহ বিভিন্ন সরকারী কর্মকর্তা ও পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
অনিন্দিতা রায় বলেন, তালা উপজেলার পাটকেলঘাটা থেকে সড়কের দুধারে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান শুরু হয়েছে। যা চলবে কালিগঞ্জ উপজেলা সদর পর্যন্ত। অভিযান শেষে রাস্তার দুধারে সীমানা পিলার বসানো হবে। যাতে সড়ক ও জনপথ বিভাগের জায়গা কেউ অবৈধভাবে দখল করতে না পারেন। মঙ্গলবার ৭৩টি ও বুধবার ৭০টি ও বৃহষ্পতিবার ৮৪টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে বলে জানা তিনি। তবে নির্ধারিত তিন দিনের পর শুক্রবার থেকে আর ভাঙা হবে কিনা সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলে পরবর্তীতে জানাতে পারবেন বলে জানান।
সাতক্ষীরা সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মীর নিজাম উদ্দীন বলেন, সড়কের এক ইঞ্চি জায়গাও আমরা রাখবো না। সড়কের জায়গায় থাকা অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নেওয়ার জন্য ইতোপূর্বে আমার মাইকিং করেছি। বিজ্ঞাপন দিয়েছি। আমরা ভেবেছিলাম সকলেই স্বপ্রনোদিত হয়ে তাদের স্থাপনা সরিয়ে নিবেন। কিন্তু দেখাযাচ্ছে সেটি হচ্ছে না। ফলে আমরা ৩ দিন অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযানের যে টার্গেট নিয়েছিলাম এতে সম্পন্ন হচ্ছে না। আমাদের যে প্রক্রিয়াগুলো রয়েছে সেগুলো সম্পন্ন করে দ্বিতীয় দফায় তারিখ নির্ধারন করে আবারো অভিযান চালানো হবে।