সম্মেলনে খালেদা জিয়া আসলে হবে ‘বিশাল ইতিবাচক ঘটনা’: আওয়ামী লীগ

যুগবার্তা ডেস্কঃ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম আশা প্রকাশ করে বলেছেন, আমাদের ২০তম জাতীয় সম্মেলনে বিএনপিকে দাওয়াত দেওয়া হয়েছে। আমরা আশা করি, বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া আসবেন। আওয়ামী লীগের সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপারসন এলে দেশের রাজনীতিতে সেটা হবে বিশাল ইতিবাচক ঘটনা।

আগামী ২২ ও ২৩ অক্টোবর আওয়ামী লীগের ২০তম ত্রিবার্ষিক জাতীয় এই সম্মেলনে দাওয়াত পাওয়া বিএনপির কোনো প্রতিনিধি আসতে পারে কিনা? এমন প্রশ্নের জবাবে সৈয়দ আশরাফ একথা বলেন।

সম্মেলনের আগে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে বলা হয়, স্বাধীনতাবিরোধী জামায়াত ও উগ্র সাম্প্রদায়িক সংগঠন ছাড়া বাকি সব গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দলকে সম্মেলনে আমন্ত্রণ জানাবে তারা। এর ধারাবাহিকতায় কার্ড পাঠিয়ে বিএনপিকে সম্মেলনের আমন্ত্রণ জানিয়েছে ক্ষমতাসীনরা। বিশ্বের ১৪টি রাষ্ট্রের গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দলের নেতাদেরও আমন্ত্রণ জানিয়েছে ক্ষমতাসীন দলটি। দলটির নীতিনির্ধারকদের দৃঢ় আশাবাদ, আমন্ত্রিত বিদেশী সব অতিথিই সম্মেলনে উপস্থিত থাকবেন।

ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন হবে। সম্মেলনে আগত ৪৫ থেকে ৫০ হাজার লোকের দুই দিনের তিন বেলা করে খাদ্যের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

সম্মেলনে বিএনপিকেও দাওয়াত দেয়া হয়েছে জানিয়ে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, আমাদের দেশের রাজনৈতিক দল ও নানা শ্রেণী-পেশার মানুষকে সম্মেলনে আমন্ত্রণ জানিয়েছি। মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের বড় শক্তি ১৪ দলকে দাওয়াত দিয়েছি এবং বিএনপিকেও দাওয়াত দিয়েছি। আমরা চাই তারা আসুক। এসে আমাদের বিজয়ের কথা শুনুক এবং তারা নিজেদের চক্রান্তের কথা শুনুক এটাই আমরা চাই।

নাসিম জানান, আওয়ামী লীগের সম্মেলন উপলক্ষে এ পর্যন্ত ১৪টি দেশকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। আমরা আশা করছি অধিকাংশ দেশই আমাদের আমন্ত্রণে সাড়া দেবে। কারণ এটা হচ্ছে স্বাধীনতার নেতৃত্ব দিয়ে বিজয়ী আওয়ামী লীগের কাউন্সিল, যার নেত্রী এখনও প্রতিটি মুহূর্তে বিজয় অর্জন করে যাচ্ছেন।