সতর্ক’ পাহারা শুরু আওয়ামী লীগের

স্টাফ রিপোটার: আগামী ১০ ডিসেম্বর রাজপথের বিরোধী দল বিএনপির গণসমাবেশ ঠেকাতে ‘সতর্ক’ পাহারা শুরু করে দিয়েছে টানা তিন মেয়াদে ক্ষমতায় থাকা দল আওয়ামী লীগ।
বুধবার পুলিশ ও বিএনপির সংঘর্ষের মধ্যদিয়ে আবারো রাজনীতির মাঠ উত্তপ্ত হয়ে উঠছে।
এরইমধ্যে বুধবার বেলা ১১ টায় আওয়ামী লীগের নেতা–কর্মীরা রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে মহড়া শুরু করেছেন। মিছিল, স্লোগান দিয়ে আওয়ামী লীগের নেতা–কর্মীদের মোড়ে মোড়ে অবস্থান নিতেছে।
আগামী ১০ ডিসেম্বর সমাবেশকে কেন্দ্র করে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বুধবার বেলা তিনটার দিকে পুলিশের সঙ্গে দলটির নেতা–কর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ পরিস্থিতিতে আওয়ামী লীগের নেতা–কর্মীদের রাজপথে মহড়া রাজপথের উত্তাপ আরও বাড়িয়ে দেবে বলেই শঙ্কাপ্রকাশ করেছেন সাধারণ মানুষ।
সূত্রে জানা গেছে,বুধবার সকাল থেকে মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের নেতা–কর্মীরা বিভিন্ন স্থানে মিছিলসহকারে অবস্থান নেন। এর মধ্যে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে নেতা–কর্মীদের একটি মিছিল বের করে।
বিএনপির সম্ভাব্য সমাবেশস্থল নয়াপল্টন থেকে মতিঝিল পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তৎপর। পুলিশের পাশাপাশি আওয়ামী লীগের নেতা–কর্মীরাও মোড়ে মোড়ে অবস্থান নিয়েছেন।
এদিন সন্ধায় পল্টন ও বিজয় নগরে পুলিশের সঙ্গে বিএনপির নৈরাজ্যের প্রতিবাদে তাৎক্ষণিক প্রতিবাদ ও
বিক্ষোভ মিছিল করেছে যাত্রাবাড়ি থানা আওয়ামী লীগ। এতে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা -৫ আসনের প্রয়াত এমপি হাবিবুর রহমান মোল্লা জেষ্ঠ পুত্র মশিউর রহমান মোল্লা সজল, বৃহত্তর ডেমরা থানা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি কৌশিক আহমেদ জসিম,৪৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, ৪৮ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক শরিফ উদ্দিন, ৬৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতা এনামুল ইসলাম এনাম, ৪৯ নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক নজরুল ইসলাম বাবু, ঢাকা মহানগর দক্ষিন কৃষক লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক হাসান মাহমুদ অপু ও নজরুল ইসলাম নিপু, ৪৮ নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক জাহিদুল কবির রাজু, ৪৯ নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মো: সজীব হোসেন সহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ।