শেষপর্যন্ত বিএনপিও ঢাকা মহানগর কমিটিকে দুই ভাগ করছে

54

যুগবার্তা ডেস্কঃ এক সময় ঢাকা সিটি করপোরেশনকে ভেঙ্গে দুই টুকরা করার বিরোধীতা করা বিএনপি এখন মনে করছে, ঢাকা সিটি করপোরেশনে যেহেতু দুই ভাগে নির্বাচন হচ্ছে বিধায় বিএনপির কমিটিও দুটি হওয়া উচিত। এতে এক দিকে দলে নতুন নেতৃত্ব আসবে, অন্য দিকে আগামী নির্বাচন সামনে রেখে একধরনের সাংগঠনিক প্রস্তুতিও থাকবে। পাশাপাশি কমিটি দুই ভাগে ভাগ করলে মহানগরের রাজনীতিতে গতি আসবে বলেও মনে করছেন অনেকে।
বিএনপির রাজনীতিতে ঢাকা মহানগর শাখাকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিবেচনা করা হয়। বেশির ভাগ ক্ষেত্রে কর্মসূচি কেন্দ্রীয়ভাবে সফল করার দায়িত্ব বর্তায় এই কমিটির ওপর। কিন্তু দীর্ঘদিন থেকে বিএনপির ঢাকা মহানগর ‘ব্যর্থ’ বলে দলে আলোচনা আছে। বিশেষত ৫ জানুয়ারির নির্বাচন প্রতিহতের আন্দোলনে ঢাকায় বিএনপির নেতা-কর্মীরা মাঠে ছিলেন না।
৫ জানুয়ারির নির্বাচন প্রতিহতের আন্দোলনে ব্যর্থতার অভিযোগে ব্যাপকভাবে সমালোচিত হয়েছিল সাদেক হোসেন খোকার নেতৃত্বাধীন ঢাকা মহানগর কমিটি। একপর্যায়ে ওই কমিটি ভেঙে দিয়ে গত বছরের ১৮ জুলাই বিএনপির স্থায়ী কমিটির সভাপতি মির্জা আব্বাসকে আহ্বায়ক ও হাবিব-উন-নবী খান সোহেলকে সদস্যসচিব করে ঢাকা মহানগর বিএনপির নতুন আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়। কিন্তু দুই বছরেও তাঁরা মহানগরের পূর্ণাঙ্গ কমিটি করতে পারেননি। বিএনপির ডাকা টানা অবরোধে আব্বাসের নেতৃত্বাধীন কমিটিও সেভাবে রাজপথে ছিল না। এ অবস্থায় এবার ঢাকা মহানগরকে দুই ভাগ করতে যাচ্ছে বিএনপি।
এ ব্যাপারে জানতে যোগাযোগ করা হলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মাহবুবুর রহমান বলেন, এখন যেভাবে ঢাকা সিটি করপোরেশনে উত্তর ও দক্ষিণে আলাদা মেয়র নির্বাচন হচ্ছে, বিএনপির কমিটিও সেভাবে দুটি হবে। স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়েছে।
সিটি করপোরেশনের আদলে দুই ভাগে বিভক্ত হচ্ছে ঢাকা মহানগর বিএনপি। ঢাকা মহানগর উত্তর ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ নামে রাজধানীতে দুটি সাংগঠনিক কমিটি করবে দলটি। এখন ঢাকা মহানগরে বিএনপি একটি ইউনিট হিসেবে আছে।
বিএনপির সূত্র জানায়, গত সোমবার রাতে অনুষ্ঠিত বিএনপির নীতিনির্ধারণী ফোরাম জাতীয় স্থায়ী কমিটি বৈঠকে ঢাকা মহানগর বিএনপিকে দুই ভাগে ভাগ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কবে নাগাদ এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করা হবে, তা চূড়ান্ত হয়নি। দলের জাতীয় নির্বাহী কমিটি ঘোষণার পর ঢাকা মহানগরের নতুনভাবে দুটি কমিটি করা হতে পারে। ইতিমধ্যে উত্তর ও দক্ষিণের কমিটিতে পদ পেতে দলের নেতারা দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন।
ঢাকা সিটি করপোরেশনকে দুই ভাগে ভাগ করার প্রবল বিরোধী ছিল বিএনপি। সিটি করপোরেশন ভাগের প্রতিবাদে ২০১১ সালের ৪ ডিসেম্বর ঢাকায় হরতাল দিয়েছিল দলটি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তারা এই সিদ্ধান্ত মেনে নেয়। দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনেও দল-সমর্থিত প্রার্থী দিয়েছিল বিএনপি। এবার দলের মহানগর কমিটিকেও দুই ভাগ করা হচ্ছে। বিএনপির রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ ইতিমধ্যে ঢাকা মহানগরকে দুই ভাগ করে কমিটি ঘোষণা করেছে।