শেখ হাসিনার নির্দেশেই মোংলা বন্দর এবং ইপিজেড সচল হয়েছে–খুলনা মেয়র

মোংলা থেকে মোঃ নূর আলমঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশেই মোংলা বন্দর এবং ইপিজেড সচল হয়েছে। ২০০১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় এসে এগুলো বন্ধ করে দিয়েছিলো। ইপিজেডে বর্তমানে ৫ হাজার নারী কাজ করছে। বন্দর এখন ঘুরে দাড়িয়েছে এবং লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে। বছরের শুরুতেই সরকার ৪ কোটি বই শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দেয়। সরকারের যুগোপযোগী শিক্ষানীতির আলোকেই শিক্ষা ক্ষেত্রে ব্যাপক অগ্রগতি সাধিত হয়েছে। আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় থাকলে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে ব্যাপক উন্নয়ন সাধিত হয়। উন্নশনের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকায় ভোট দিতে হবে। রবিবার সকালে মোংলার খানজাহান আলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় চত্বরে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের তত্ত্বাবধানে নির্মিত ১৯টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন এবং শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের তত্ত্ববধানে নির্মিত ১টি কলেজ ভবনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় খুলনা সিাটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক এ কথা বলেন।

রবিবার সকাল ১০টায় ভবন উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মোংলাপোর্ট পৌরসভার সাবেক মেয়র পৌর আ্ওয়ামীলীগের সভাপতি সেখ আব্দুস সালাম। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাগেরহাট-৩ এর সংসদ সদস্য বেগম হাবিবুন নাহার, উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সুনিল কুমার বিশ্বাস, অধ্যক্ষ মোঃ গোলাম সরোয়ার, উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ রবিউল ইসলাম, থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ ইকবাল বাহার চৌধুরী, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সেখ আব্দুর রহমান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইব্রাহিম হোসেন ও অধ্যক্ষ এস এম হাফিজুর রহমান। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ নূর আলম শেখ, আ্ওয়ামীলীগ নেতা গাজী ˆতয়াবুর রহমান, এ্যাডঃ সেখ আব্দুস সালাম, ইউপি চেয়ারম্যান মোল্লা মোঃ তারিকুল ইসলাম, শেখ কবির হোসেন, যুবলীগ নেতা শেখ কামরুজ্জামান জসিম, মোঃ ইকবাল হোসেন, শেখ আল মামুন, ছাত্রলীগ নেতা শিকদার ইয়াসিন আরাফাত, কে এম এইচ রানা, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মিজান তালুকদার, ফাহিম হাসান অন্তর প্রমূখ। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় বেগম হাবিবুন নাহার এমপি বলেন সরকার প্রাথমিক পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের ভাতা, মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে উপবৃত্তি প্রদান করছে। শিক্ষকদের বেতন-ভাতাদি বৃদ্ধি করা হয়েছে। শিক্ষার মান উনśয়নে এখন সকলকে মনযোগী হতে হবে। উল্লেখ্য স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের তত্ত্বাবধানে ১৯টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন নির্মান করতে ব্যয় হয়েছে ২৮ কোটি ৮৮ লাখ টাকা। এর মধ্যে ৩টি রয়েছে স্কুল কাম সাইক্লোন শেল্টার রয়েছে। অন্যদিকে শিক্ষা প্রকৌশল অধিপ্তরের তত্ত্বাবধানে বঙ্গবন্ধু মহিলা কলেজের চারতলা তালুকদার আব্দুল খালেক একাডেমিক ভবন নির্মানে মোট ব্যয় হয়েছে প্রায় ৩ কোটি টাকা। ভবন উদ্বোধন শেষে প্রধান অতিথি সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক দুপুরে মোংলা উপজেলা পরিষদ ভবনে সরকারি কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় সভায় মিলিত হন এবং উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডের দিক নির্দেশনা প্রদান করেন। এসময় জনপ্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।