লাল পতাকার ভ্যানগার্ড

149

রফিকুল ইসলাম সুজনঃ বাবুল আক্তার একজন বিপ্লবী , একজন খাটি কমরেড। সাপ্তাহিক নতুন কথার ব্যবস্থাপনা সম্পাদক। ছিলেন ওয়ার্কার্স পার্টির সাচ্ছা কমরেড। রাজপথে মিছিল হলেই হাতে পতাকা নিয়ে অংশ নিতেন। রবিবার ছিল তার প্রথম মৃত্যবার্ষিকী, অবশ্য সোমবার নতুন কথা পরিবার তার স্মরণ সভা করেছেন।
তার সাথে রয়েছে অনেক স্মৃতি। রাজনীতি করার সুবাধে তার সাথে পরিচয়। ঘনিষ্ঠতা হয় সাংবাদিকতা করার সুবাধে। পার্টি অফিসে এলেই তার চির চেনা মুথটা দেখা যেত। সব সময় নতুন কথা অফিসে কিছুনা কিছু কাজ নিেয় ব্যস্ত থাকতেন। হয় কম্পিউটারে কম্পোজ, হয়তো পেষ্টিং কখনও হিসাব নিয়ে ব্যস্ত। যার কারনে নতুন কথার সাথে তার নাম মিশে গিয়েছিল। কিন্তু হঠাত কি করে যেন সব এলোমেলো হয়ে শেষ।
গত বছর ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে অফিসেই অসুস্থ হয়ে পরলে, হাসপাতালে নেওয়া হলে জানা যায় হার্টএটাক। সুস্থ হয়ে উঠেছিল। পুরোপুরি সুস্থ হতে একটা সার্জারী করতে হবে। ডাক্তারের পরামর্শে নিজেই অসুধ কিনে হাজির হন হাসপাতালে। দিনটা ছিল গত বছরের ৩ জানুয়ারি হাসিমুখে অপারেশন থিয়েটারে। এখানেই শেষ বাবুল আক্তার চলে গেলেন না ফেরার দেশে। সে আমাদের মাঝে আর ফিরবে না। কিন্তু তার সাথের স্মৃতি রয়ে যাবে আমৃত্য। বাবুল আক্তার তুমি ক্ষমা করে দিও, যেখানে থেকো ভাল থেকো।- লেখকঃ সম্পাদক,যুগবার্তা