লাখো কণ্ঠে ‘বিদ্রোহী’ কবিতা আবৃত্তিতে তথ্যমন্ত্রী

50

যুগবার্তা ডেস্কঃ ‘জাতি বীর চায়, দেশপ্রেমিক চায়, গণতন্ত্রের সৈনিক চায়; চায় স্বপ্নদ্রষ্টা, ভবিষ্যত নির্মাণের নেতা ও কারিগর। চাইনা পোষ মানা যৌবন, সমাজকে আরেক ধাপ এগিয়ে নিতে ঘামের দাম চাই, পতাকার সম্মান চাই।’

ঐতিহাসিক মে দিবসের বিকেলে প্রাচ্যের অক্সফোর্ড নামে খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শরীরচর্চাকেন্দ্র ময়দানে প্রথমবারের মতো লাখো কণ্ঠে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ‘বিদ্রোহী’ কবিতা আবৃত্তির প্রারম্ভে প্রধান অতিথির শাণিত ভাষণে দেশের তরুণদের উদ্দেশ্যে একথা বলেন তথ্যমন্ত্রী ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু।

তরুণদের সামনে কাব্যিকভাবে বাংলাদেশের পরিচয় তুলে ধরে মন্ত্রী বলেন, ‘বিশ্বাস আমাদের ধর্মনিরপেÿতা আর জাতীয়তাবাদ, গণতন্ত্র-সমাজতন্ত্র আমাদের মতবাদ। চারনীতির এই বিধান, তা-ই আমাদের সংবিধান।’ দেশের জন্য কিছু করবোই এই মনোভাবের ওপর সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়ে ইনু বলেন, ‘শপথ নিতে হবে- জাতির বিবেক হবো, উচিতবক্তা হবো, নেতা-নেত্রীর লাঠিয়াল-তল্পিবাহক হবোনা, মানুষের মতো মানুষ হবো, মাদকসেবন করবোনা।’

‘সামনে তাকাও, সামনে আগাও, দুনিয়াটা জয় করে নাও’ আর ‘তোমার দেশ, আমার দেশ, বাংলাদেশ, বাংলাদেশ’ বলে তথ্যমন্ত্রীর দেয়া শ্লোগানের সাথে সাথে সমবেত সকলে বিপুল হর্ষধ্বনি দেয়।

এসময় জাতির পিতা এবং জাতীয় কবির প্রতি সম্মান জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘১৯৪৭ সালের অবৈজ্ঞানিক দেশবিভাগের পর থেকে বায়ান্ন, চুয়ান্ন, ঊনসত্তর, সত্তর ও শেষে একাত্তরের মহাবিদ্রোহে স্বাধীনতার সুদীর্ঘ সংগ্রামে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু জাতিকে যে অবিসংবাদিত নেতৃত্ব দিয়েছেন, তা ইতিহাসের অমর অধ্যায়।’ কবি নজরুল ইসলামকে অন্যায়ের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ আর অসাম্প্রদায়িকতার প্রতীক এবং প্রেম, দ্রোহ আর মানবতার কবি বর্ণনা করে ষোলকোটি মানুষের পক্ষে লাখো কণ্ঠে ‘বিদ্রোহী’ কবিতা আবৃত্তির ময়দান থেকে জাতীয় কবিকে শ্রদ্ধা জানান হাসানুল হক ইনু।

নজরুল চর্চা কেন্দ্র বাঁশরী ও বাংলাদেশ ন্যাশনাল ক্যাডেট কোর (বিএনসিসি)’র এ যৌথ উদ্যোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বিশেষ অতিথি হিসেবে এবং আয়োজকদের পক্ষে বিএনসিসি’র মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এস এম ফেরদৌস এবং বাঁশরী’র সভাপতি ড: ইঞ্জিনিয়ার মো: খালেকুজ্জামানসহ মিডিয়া সহযোগী এটিএন বাংলার প্রতিনিধি বক্তব্য রাখেন।

লাখো কণ্ঠে ‘বিদ্রোহী’ আবৃত্তিতে বিএনসিসির প্রায় ২০ হাজার সদস্য, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অসংখ্য শিক্ষার্থী, অভিভাবক, শিক্ষকসহ সর্বসাধারণ স্বতস্ফূর্তভাবে অংশ নেয় ।