লন্ডনে প্রধানমন্ত্রীর সফরঃ বিএনপির বিক্ষোভ

যুগবার্তা ডেস্কঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যুক্তরাজ্য সফরকে কেন্দ্র করে লন্ডনে বিক্ষোভ করেছে যুক্তরাজ্য বিএনপি। স্থানীয় সময় বুধবার দুপুর ১২টার দিকে বাকিংহামশায়ার স্টক পার্ক কাউন্টি হোটেলের বাইরে তারা এই প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করে। এসময় যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি এম এ মালিক বলেন, ‘যারা এই সরকারের আমলে অত্যাচার, নির্যাতন ও গুমের স্বীকার হয়েছেন তাদের পরিবারের সদস্যরাই আজকে এখানে এসেছেন। তারাই প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ করছেন।’ প্রধানমন্ত্রীর সফরকে কেন্দ্র করে আগেই এই কর্মসূচি ঘোষণা করে যুক্তরাজ্য বিএনপি। দুপুর ১২টা থেকে পূর্ব লন্ডনের আলতাফ আলী পার্ক জমায়েত হতে থাকেন দলের নেতা কর্মীরা। তবে প্রধানমন্ত্রী ঠিক কোন হোটেলে উঠছেন বিষয়টি সম্পর্কে তার নিশ্চিত ছিলেন না। দুই দুটি হোটেলের বুকিং বাতিল করে শেষ মুহূর্তে প্রধানমন্ত্রী বাকিংহামশায়ারের স্টক পার্ক কাউন্টি হোটেলে অবস্থানের সিদ্ধান্ত নেন। প্রধানমন্ত্রীর অবস্থান সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে বিএনপির নেতা-কর্মীরা তাৎক্ষণিকভাবে সিদ্ধান্ত নিয়ে হোটেলের বাইরে বিক্ষোভ করে। এ বিষয়ে লন্ডনস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশনারের প্রেস মিনিস্টার নাদীম কাদির বলেন, ‘যেকোনো রাজনৈতিক দলের সভা, সমাবেশ ও প্রতিবাদ করা একটি রাজনৈতিক অধিকার। তবে এ ধরনের কর্মকাণ্ড প্রধানমন্ত্রীর স্বাভাবিক কার্যক্রমে কোনও ব্যাঘাত ঘটাতে পারেনি। প্রধানমন্ত্রীর জন্য সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে।’ এর আগে হিল্টন পার্ক হোটেল ও হিথ্রো বিমানবন্দর সংলগ্ন সোফিকের হোটেলে প্রধানমন্ত্রীর বুকিং বাতিল করা হয়। জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তার নিশ্চিত করার জন্য ওই দুটি হোটেলের বুকিং বাতিল করা হয়। কানাডায় অনুষ্ঠিতব্য ফিফথ রিপ্লেনিসমেন্ট কনফারেন্স অব দ্যা গ্লোবাল ফান্ড ( জিএফ) ও জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭১ তম অধিবেশনে যোগ দেওয়ার উদ্দেশ্যে যাত্রাপথে যুক্তরাষ্ট্রের লন্ডনে এসে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাংলাদেশ বিমানের একটি ভিভিআইপি ফ্লাইটে করে প্রধানমন্ত্রী স্থানীয় সময় বিকাল ৪:০৫ মিনিটে লন্ডনের হিথ্রো বিমানবন্দরে এসে পৌঁছান। ব্রিটেনে নিযুক্ত ভারপ্রাপ্ত হাই কমিশনার খন্দকার এম তালহা, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদ শরীফ, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক, যুগ্ম সম্পাদক নঈম উদ্দীন রিয়াজ ও আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী বিমানবন্দরের ভিভিআইপি লাউঞ্জে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানান। বিমানবন্দর থেকে প্রধানমন্ত্রী বাকিংহামশায়ারের স্টক পার্ক কাউন্টি হেটেলে পৌঁছালে হোটেলের অবস্থানরত যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও হাই কমিশনের উর্ধতন কর্মকতারা প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানান। লন্ডনে ২২ ঘন্টার যাত্রা বিরতিকালে প্রধানমন্ত্রীর কোন আনুষ্ঠানিক কর্মসূচি নেই বলে জানিয়েছেন লন্ডনের মিনিস্টার প্রেস নাদিম কাদির। কানাডা যাত্রার আগে প্রধানমন্ত্রী নিজ হোটেলেই পরিবারের সদস্যদের সাথে কিছুটা সময় কাটিয়ে বাকি সময়টা বিশ্রাম নেবেন। বৃহস্পতিবার লন্ডন সময় দুপুর ২ টা ৫ মিনিটে এয়ার কানাডার একটি ফ্লাইটে করে প্রধানমন্ত্রী কানাডার মন্ট্রিলের উদ্দেশে লন্ডন ছেড়ে যাবেন।