রাজধানীর ভাসমান তরুণদের ৭২ শতাংশ এইচআইভি ঝুঁকিতে

38

যুগবার্তা ডেস্কঃ ঢাকা শহরের ১৫ থেকে ২৪ বছর বয়সী ভাসমান পুরুষ জনগোষ্ঠীর ৭২ শতাংশেরই যৌনকাজের অভিজ্ঞতা আছে। অনিরাপদ যৌন আচরণের কারণে এরা এইচআইভি ঝুঁকির মধ্যে আছে। বেসরকারি প্রতিষ্ঠান পপুলেশন কাউন্সিলের এক জরিপে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

আজ বৃহস্পতিবার ব্র্যাক সেন্টারে যুব সম্প্রদায়ের প্রজনন স্বাস্থ্য ও অধিকারবিষয়ক সেমিনারে জরিপের ফলাফল উপস্থাপন করা হয়। লিংক আপ বাংলাদেশ, মেরী স্টোপস বাংলাদেশ এবং পপুলেশন কাউন্সিল যৌথভাবে এই সেমিনারের আয়োজন করে।
সেমিনারে পপুলেশন কাউন্সিলের গবেষকেরা বলেছেন, ঢাকা শহরে খোলা আকাশের নিচে প্রায় ২০ হাজার যুব জনগোষ্ঠী বসবাস করে। জরিপে এদের ৪৪৭ জনের তথ্য নেওয়া হয়েছে। এদের ২৮ শতাংশ রেলস্টেশনে, ১৫ শতাংশ লঞ্চঘাটে, ৩৬ শতাংশ রাস্তায় ও অন্যান্য স্থানে ২২ শতাংশ বসবাস করে। এদের ৯২ শতাংশ অবিবাহিত, আর বিবাহবিচ্ছেদের পর রাস্তায় এসেছে ১ শতাংশ। এদের তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, রাস্তায় বসবাস করা এসব মানুষ গড়ে ১৪ বছর বয়সেই যৌনকাজের অভিজ্ঞতা অর্জন করে।
গবেষকেরা বলেছেন, রাস্তার যুব জনগোষ্ঠীর ৯৮ শতাংশই কোনো না কোনো কাজ করে। এদের ৮০ শতাংশ বলেছেন, তারা অর্থের বিনিময়ে যৌনকাজ করেন। পাশাপাশি ৮৮ শতাংশ বলেছেন বিভিন্ন সময়ে তারাও নানাভাবে যৌন নির্যাতনের শিকার। ৭৭ শতাংশের শারীরিক নির্যাতনের অভিজ্ঞতা আছে। অচেনা মানুষ, অন্য যুবক, বাড়ি বা অফিসের নিরাপত্তা কর্মী বা মালিকের হাতে এরা নির্যাতিত হন বলে জানিয়েছেন। এদের আট শতাংশ এসটিডি ও ৭৭ শতাংশ এইচআইভি সম্পর্কে শুনেছেন। এদের কাজের ও বসবাসের স্থানে মাদকের ব্যবহার যেমন বেশি, তেমনি প্রয়োজনের সময় কনডম তারা পান না। গবেষকেরা বলছেন, এরা অধিকতর এইচআইভি ঝুঁকির মধ্যে আছেন।
অনুষ্ঠানে বলা হয়, লিংক আপ বাংলাদেশ প্রকল্পটি দেশের ১৭টি জেলায় ১০ থেকে ২৪ বছর বয়সী প্রায় তিন লাখ মানুষকে প্রজনন স্বাস্থ্য সেবা দিচ্ছে ও অধিকার সম্পর্কে সচেতন করছে। প্রকল্পটি শুরু হয়েছে ২০১৩ সালে, শেষ হবে এ বছর জুনে।
প্রকল্পের অংশী হিসেবে মেরী স্টোপস বাংলাদেশ প্রজনন স্বাস্থ্য সেবা দিচ্ছে, দক্ষতা বৃদ্ধিতে সহায়তা ও স্বাস্থ্য সচেতন করছে। এই প্রকল্পের অংশ হিসেবে পপুলেশন কাউন্সিল যুব জনগোষ্ঠী নিয়ে ওই গবেষণা করেছে। অনুষ্ঠানে লিংক আপ প্রকল্পের সুবিধাভোগীদের ওপর আরও দুটি গবেষণা প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোহাম্মদ ওয়াহিদ হোসেন, পপুলেশন কাউন্সিলের কান্ট্রি ডিরেক্টর ওবায়দুর রব বক্তব্য দেন।প্রথম আলো