যুব ইউনিয়নের নেতাদের উপর রাজারবাগ পীরের মুরিদদের হামলা

ডেস্ক রিপোর্ট: বাংলাদেশ যুব ইউনিয়ন কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি হাফিজ আদনান রিয়াদ ও সাধারণ সম্পাদক খান
আসাদুজ্জামান মাসুম আজ এক বিবৃতিতে গতকাল ২৭ মে রাতে শান্তিনগর মোড়ে কর্মসংস্থান ও বেকার ভাতা চালুসহ ৯ দফা দাবিতে আগামী ৯ জুন জাতীয় যুব সমাবেশের দেয়াল লিখনকে কেন্দ্র করে প্রথম
বাধা পরবর্তীতে হামলা করে যুব নেতা জাহাঙ্গীর আলম নান্নুকে তুলে নিয়ে নির্যাতন করার তীব্র প্রতিবাদ ও হামলাকারী জঙ্গি মৌলবাদীদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবি জানান।
বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, কেবল শারীরিক নির্যাতন নয় সাম্প্রদায়িক উসকানি দেয়ার চেষ্টা করে কিন্তু দ্রুত পুলিশ চলে আসায় সেটি সম্ভব করতে পারেনি।
বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ আরো জানান, এর আগে এই দেয়ালটিতে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র দেয়াল লিখন ছিল। সেটি মুছে রাজারবাগ পীরের মুরিদরা এর আগে সেখানে অনৈতিকভাবে দেয়ালে লেখেন। পুরনো সেই দেয়াল লিখনে কর্মসূচির কোনো তারিখও উল্লেখ ছিল না। এ সময়ে তারা বলেন, এই ফ্লাইওভার নির্মাণের পর থেকেই এর দেয়ালগুলো আমাদের দখলে। এসময়ে যুব ইউনিয়নের
নেতৃবৃন্দ তাদের দেখিয়েছেন যে পূর্বে তাদের দেয়াল লেখা অন্যায়ভাবে মুছে আল-বাইয়্যানাত দেয়াল লিখেছে এটা অন্যায়। যুবনেতা নান্নুকে তুলে নেয়ার পরে তারা “কমিউনিস্ট ধরেছি” বলে উপর্যুপরি
আঘাত করে।
বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ উল্লেখ করেন ইতোমধ্যে সরকার ও দুদক রাজারবাগ পীরের ভ‚মিদখল জঙ্গি কায়দায় রাষ্ট্রবিরোধী জঙ্গি কর্মকাণ্ডের আলামত পেয়েছে। যা নিয়ে কয়েকটি মামলা হাইকোর্টে বিচারাধীন আছে।
সরকারের কাছে দাবি জানিয়ে নেতৃবৃন্দ বলেন, অবিলম্বে যুব ইউনিয়ন নেতৃত্বের ওপর ন্যাক্কারজনক হামলা ও অপহরণ করে নির্যাতন করাসহ রাজারবাগ পীর ও তাদের মুরিদদের আস্ফালন বন্ধের উদ্যোগ
নিতে হবে।