যুদ্ধের জন্য প্রস্তুতি ভারত-পাকিস্তান

যুগবার্তা ডেস্কঃ কাশ্মীরে সেনাক্যাম্পে হামলায় ১৮ ভারতীয় সেনা নিহতকে কেন্দ্র ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে উত্তপ্ত পরিস্থিতি বিরাজ করছে। ইতিমধ্যেই দু’দেশেরই সীমান্তে অবস্থিত গ্রামগুলো খালি করা হচ্ছে। মহড়া দিচ্ছে যুদ্ধবিমান। মজুদ হচ্ছে বাড়তি সেনা, গোলাবারুদ। নিয়ন্ত্রণরেখার দু’পার বরাবর প্রস্তুতি জোরদার করছে পাকিস্তান এবং ভারত, দু’দেশই। দু’দেশই বলছে, তাদের আশঙ্কা, অন্য পক্ষ হামলা চালাতে পারে।

গত দু’দিন ধরেই ভারত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর নিজেদের চৌকিতে অস্ত্রশস্ত্র মজুদ করছে বলে সরব ছিল পাকিস্তানের প্রশাসন। এবার পরবর্তী পদক্ষেপে উরি এলাকার নিয়ন্ত্রণরেখা সংলগ্ন গ্রামগুলি থেকে লোক সরানোর প্রক্রিয়া শুরু করেছে পাকিস্তানের সেনাবাহিনী। উরিতে সেনা ছাউনির বিপরীতে সীমান্ত পারে পাকিস্তানের জাওয়ন্দ বলে যে গ্রামটি রয়েছে, খালি করে দেয়া হয়েছে সেটি। আপাতত ওই গ্রামের দখল নিয়েছে পাকিস্তানের সেনা।

গতকাল থেকেই ইসলামাবাদের আকাশ চিরে উড়তে দেখা গিয়েছিল যুদ্ধবিমান এফ-১৬। ওই বিমান রানওয়ের পরিবর্তে রাস্তায় নামতে পারে কি না, পাকিস্তানের বিমানবাহিনী তাও পরীক্ষা করে দেখেছে। ইসলামাবাদ-লাহোর জাতীয় সড়ক বন্ধ করে চলে ওই প্রশিক্ষণ।

পাকিস্তানের বিমানবাহিনীর মুখপাত্র জাভেদ মোহাম্মদ আলি বলেন, এই মহড়ার সঙ্গে ভারত-পাকিস্তানের সাম্প্রতিক উত্তেজনার কোনও সম্পর্ক নেই। এটি রুটিন প্রক্রিয়া।

বিমানবাহিনীর মুখপাত্র ওই কথা বললেও, ভারত অবশ্য একে যুদ্ধের প্রস্তুতি হিসেবেই দেখছে। পাকিস্তানকে পাল্টা চাপে রাখতে এ দিন ভারতও মিরাজ ২০০০ বিমান থেকে পরীক্ষামূলকভাবে মিকা ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়েছে। দৃষ্টিসীমার বাইরে থাকা নিশানায় সফল ভাবে আঘাত করতে সমর্থ হয়েছে এই ক্ষেপণাস্ত্র।