যানজট এড়াতে স্থানান্তরিত হচ্ছে রাজশাহী বাসস্ট্যান্ড

মো.পাভেল ইসলাম রাজশাহী: যানজট এড়াতে রাজশাহীর শিরোইলের বাসস্ট্যান্ড নওদাপাড়ায় স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত নিয়েছে জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়ন। রোববার (১৪ আগস্ট) জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মাহাতাব হোসেন চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, নগরীর গুরুত্বপূর্ণ এলাকা যানজট মুক্ত রাখতে মালিক ও শ্রমিকের পক্ষ থেকে সব গাড়ি নওদাপাড়ায় স্থানান্তর করা হবে। সেখান থেকে সব রোডে ছেড়ে যাবে বিভিন্ন রুটের গাড়ি। ইতোমধ্যে এ লক্ষ্যে কাজও শুরু হয়েছে।

সেখানে আরও বলা হয়, দূরপাল্লাসহ স্থানীয় সব রুটে নওদাপাড়া থেকে গাড়ি ছেড়ে যাবে। বাসগুলো নওদাপাড়া গোলচত্বর পদ্মা আবাসিক লেক হয়ে ভদ্রা দিয়ে চলবে। নওদাপাড়া থেকে ভদ্রা পর্যন্ত চারলেনের কাজ শেষ হলে বাসগুলো চলাচল শুরু হবে।

জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মাহাতাব হোসেন চৌধুরী বলেন, এখন থেকে সব ধরনের বাস নওদাপাড়া গোলচত্বর পদ্মা আবাসিক লেক হয়ে ভদ্রা চারলেনের দিয়ে চলাচল করবে। কাজ শেষ হলে বাসগুলো চলাচল শুরু হবে। বাসস্ট্যান্ড স্থানান্তর করলে যানজট ও দুর্ঘটনা অনেকাংশে কমে যাবে।

এর আগে, ২০০৪ সালের জুনে নগরীর উপকণ্ঠে ৭ দশমিক ৪১ একর জায়গার ওপর সাড়ে সাত কোটি টাকা ব্যয়ে নওদাপাড়া বাস টার্মিনাল স্থাপন করা হয়। ২০১১ সালের জুন মাসে পরিবহন মালিকদের কাছে টার্মিনালটি হস্তান্তর করে রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (আরডিএ)। উদ্দেশ্য ছিল, নগরীর মূল কেন্দ্রে অবস্থিত শিরোইল বাস টার্মিনাল সরিয়ে শহরের বাইরে স্থাপন করা। যাতে করে শহরের যানজট ও দুর্ঘটনা কমে। কিন্তু প্রতিষ্ঠার ১৩ বছর পরও সে উদ্যোগ বাস্তবায়িত হয়নি। এখনও শিরোইল বাস টার্মিনাল থেকেই বাস চলাচল করছে। শুধু শিরোইল বাস টার্মিনালই না, যাত্রী ওঠানোর টার্মিনাল হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে নগরীর মূল পয়েন্ট রেলগেট ও ভদ্রা মোড়।