যতদিন বেঁচে আছি, সম্প্রীতির বন্ধন নিয়ে আপনাদের পাশে থাকবো–উপমন্ত্রী নাহার

মোংলা (বাগেরহাট) থেকে মো. নূর আলমঃ যতদিন বেঁচে আছি সম্প্রীতির বন্ধন নিয়ে আপনাদের পাশে থাকবো। বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। সম্প্রীতি বিনষ্টকারীদের বিরুদ্ধে সমাজকে রুখে দাড়াতে হবে। ”ধর্ম যার যার রাস্ট্র সবার” মহান মুক্তিযুদ্ধের এই চেতনার ভিত্তিতে বাংলাদেশ পরিচালিত হবে। আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় থাকলে দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় থাকে। ১ জুলাই শুক্রবার বিকেলে মোংলার ব্রাম্মণমাঠ জগন্নাথ মন্দির চত্বরে শ্রীশ্রী জগন্নাথদেবের ১২তম রথযাত্রা উপলক্ষে মোংলা উপজেলা সনাতনী ভক্তবৃন্দ’র আয়োজনে আলোচনা সভায় পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার এমপি একথা বলেন। প্রতিবছর আষাঢ়ের শুক্লপক্ষের দ্বিতীয়া তিথিতে এ রথযাত্রা শুরু হয়।
শুক্রবার বিকেল ৩টায় আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন রথযাত্রার উদযাপন কমিটির সভাপতি পীযুষ কান্তি মজুমদার। আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কমলেশ মজুমদার, থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ মনিরুল ইসলাম, মোংলা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সুনীল কুমার বিশ্বাস, সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইব্রাহীম হোসেন, বাগেরহাট পুজা উদযাপন কমিটির সহ-সভাপতি অম্বরিশ রায়, চাঁদপাই ইউপি চেয়ারম্যান মোল্লা মোঃ তারিকুল ইসলাম ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মোঃ ই¯্রাফিল হোসেন হাওলাদার। প্রধান অতিথির বক্তৃতায় উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার এমপি আরো বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু বলতেন আমার ধর্ম আমার, তোমার ধর্ম তোমার। অর্থাৎ যার যার ধর্ম সে স্বাধীনভাবে পালন করবে। রাষ্ট্র তাতে কোন প্রকার বাধা দেবে না। প্রত্যেকটি নাগরিক সমান অধিকার ভোগ করবে। বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও বলেন ধর্ম যার যার উৎসব সবার। প্রধানমন্ত্রী দেশের জন্য শুধু পদ্মা সেতু নির্মাণ নয়, তিনি ১০ টাকা মূল্যের ভিজিএফ’র চাল, কর্নফুলি টানেল নির্মাণসহ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি প্রধানমন্ত্রীর জন্য উপস্থিত পূন্যার্থীসহ সকলের কাছে দোয়া ও আশির্বাদ চেয়েছেন। রথযাত্রা বা রথদ্বিতীয়া এটি আষাঢ় মাসে আয়োজিত অন্যতম হিন্দুদের প্রধান উৎসব। দীর্ঘ বিচ্ছেদের পর কৃষ্ণের বৃন্দাবন প্রত্যাবর্তনের স্মরণে এই উৎসব আয়োজিত হয়ে থাকে।