মোবাইলে কল করলে খুলবে দরজা-জানালা

193

পুরো বশ্বি এখন একটা গ্রামে পরণিত হয়ছে।ে ডজিটিাল যুগ নরিাপত্তার আরও একধাপ এগয়িে এবার মোবাইলে কল দয়িইে ঘররে জানালা-দরজা খোলা যাব।ে

আধুনকি প্রযুক্তরি যুগে মোবাইল ফোনরে নানামুখী ব্যবহাররে সঙ্গে যোগ হলো ঘররে জানালা-দরজা খোলা ও বন্ধ করার বষিয়টওি। যে কোনো স্থান থকেে মোবাইল ফোনে কল করে তা পরচিালনা করা যাব।ে

অভাব অনটনরে সংসারে কৃষক ঘরে জন্ম মধোবী কলজে ছাত্র মো. হুজাইফা খান সম্রাট (১৭)। বগুড়ার ধুনট উপজলোর চৌকবিাড়ী ইউনয়িনরে বহালগাছা গ্রামরে খয়রুজ্জামান খানরে ছলে।ে মা রখো খাতুন। দুই ভাইয়রে মধ্যে সম্রাট ছোট।

র্পাশ্বর্বতী সরিাজগঞ্জ জলোর কাজপিুর উপজলোর সোনামুখী কওমী মাদ্রাসা থকেে সম্রাটরে শক্ষিা জীবন শুরু। এরপর বাড়রি পাশে খান বাহাদুর দাখলি মাদ্রাসা থকেে ২০১২ সালে দাখলি পাশ করনে। র্বতমানে ধুনট উপজলোর নৎরতপুর হাজী কাজমে-জোবদো টকেনক্যিাল অ্যান্ড ম্যানজেমন্টে কলজেে একাদশ শ্রণেতিে পড়ছনে তনি।ি

লখোপড়ার পাশাপাশি ধুনটে বশ্বি হরগিাছা বাজারে সরকার র্মাকটেে নজিরে দোকানে মোবাইল র্সাভসিংি এর কাজ করনে। আর সে আয় থকেে পড়ালখোর খরচ যোগান সম্রাট। ছোট বলো থকেইে স্বপ্ন ছলিো কছিু আবষ্কিাররে। বয়স ১১ বছর না যতেে না যতেইে ইলকেট্রকি মস্ত্রিি হসিবেে মানুষরে বাসা-বাড়তিে কাজ শুরু করনে। তার ওস্তাদ তনিি নজিইে। একই ভাবে অন্যরে দখেে আয়ত্ব করে ফলেনে মোবাইল র্সাভসিংিয়রে কাজ।

কাজরে ধারাবাহকিতায় আবষ্কিাররে চন্তিায় দুই বছর আগে স্বপ্ন দখেনে মোবাইল ফোনরে নটের্ওয়াকরে মাধ্যমে নতুন কছিু করার। ভাবনার জগতে ডুবে যান সম্রাট, মাথায় আসে রমিোট কন্ট্রোলরে মতো মোবাইল ফোন ব্যবহার করা যায় ক-িনা।

যইে ভাবনা সইে কাজ। মোবাইল ফোনরে ব্যবহার করে ঘররে জানালা-দরজা খোলা ও বন্ধ করার পদ্ধতি আবষ্কিার করছেনে তনি।ি নজিরে ব্যবসা প্রতষ্ঠিানরে কম্পউিটাররে সাহায্যে নতুন একটি সফটওয়্যার আবষ্কিার করে তা মোবাইলে ইনস্টল করে সফল হন তনি।ি

পরীক্ষামলক ভাবে সম্রাট দুইফুট দর্ঘ্যৈ, একফুট প্রস্থ্য ও এক ফুট উচ্চতা সম্পন্ন একটি কাচরে ঘর তরৈি করনে। সইে ঘররে দরজাও কাচরে। মোবাইল ফোনে সমি লাগয়িে ঘররে ভতির দরজার সঙ্গে আটকানো হয়।

সমির্কাডে রয়ছেে গোপন পনি কোড। নজিরে মোবাইল থকেে দরজায় লাগানো মোবাইল নম্বরে পনিকোড ব্যবহার করে কল দলিে সহজইে খুলে যায় দরজার পাল্লা।

আবার প্রয়ােজন অনুযায়ী কল করলে একই পদ্ধততিে তা বন্ধ হয়ে যায়। দরজা খুলতে বা বন্ধ হতে সময় লাগে মাত্র ৩০ সকেন্ডে। তবে পদ্ধতি সচল রাখতে র্সাবক্ষণকি বদ্যিুত সংযোগ থাকা আবশ্যক। এ পদ্ধতি আবষ্কিার করতে তার প্রায় ৬ হাজার টাকা খরচ হয়ছে।ে যকেোনো ঘরে কাঠ, স্টলি, কাচ কংিবা অন্যান্য সামগ্রীর তরৈি দরজায় এই পদ্ধতি ব্যবহার করা যাব।ে

এদকিে সম্রাটরে কাজ দখেতে প্রতদিনি তার ব্যবসা প্রতষ্ঠিানে হাজারো কৌতহলী মানুষ ভড়ি করছনে।

সম্রাট জানান, এই আবষ্কিাররে পছেনে অন্য কারো সহযোগতিা নইে। কাউকে অনুকরণ কংিবা অনুসরন করওে নয়, বরং নজিরে চষ্টোয় আল্লাহ তাকে এই সফলতা দয়িছেনে।

সম্রাট বলনে, ঘরে দরজা ব্যবহারযোগ্য করে তরৈি করতে ব্যয় হবে প্রায় ১ লাখ টাকা। অধকি চন্তিা-ভাবনার মাধ্যমে এই ব্যয় কমানো সম্ভব। তবে র্আথকি অসচ্ছলতার কারণে তা দখেতে আরও কছিুদনি সময় লাগব।ে

ভবষ্যিতে বাণজ্যিকিভাবে এই পদ্ধতি বাজারজাত করার পরকিল্পনা রয়ছেে জানয়িে তনিি বলনে, এ ক্ষত্রেে সরকারি সহযোগতিা প্রয়োজন।

পুরো বশ্বি এখন একটা গ্রামে পরণিত হয়ছে।ে ডজিটিাল যুগ নরিাপত্তার আরও একধাপ এগয়িে এবার মোবাইলে কল দয়িইে ঘররে জানালা-দরজা খোলা যাব।ে

আধুনকি প্রযুক্তরি যুগে মোবাইল ফোনরে নানামুখী ব্যবহাররে সঙ্গে যোগ হলো ঘররে জানালা-দরজা খোলা ও বন্ধ করার বষিয়টওি। যে কোনো স্থান থকেে মোবাইল ফোনে কল করে তা পরচিালনা করা যাব।ে

অভাব অনটনরে সংসারে কৃষক ঘরে জন্ম মধোবী কলজে ছাত্র মো. হুজাইফা খান সম্রাট (১৭)। বগুড়ার ধুনট উপজলোর চৌকবিাড়ী ইউনয়িনরে বহালগাছা গ্রামরে খয়রুজ্জামান খানরে ছলে।ে মা রখো খাতুন। দুই ভাইয়রে মধ্যে সম্রাট ছোট।

র্পাশ্বর্বতী সরিাজগঞ্জ জলোর কাজপিুর উপজলোর সোনামুখী কওমী মাদ্রাসা থকেে সম্রাটরে শক্ষিা জীবন শুরু। এরপর বাড়রি পাশে খান বাহাদুর দাখলি মাদ্রাসা থকেে ২০১২ সালে দাখলি পাশ করনে। র্বতমানে ধুনট উপজলোর নৎরতপুর হাজী কাজমে-জোবদো টকেনক্যিাল অ্যান্ড ম্যানজেমন্টে কলজেে একাদশ শ্রণেতিে পড়ছনে তনি।ি

লখোপড়ার পাশাপাশি ধুনটে বশ্বি হরগিাছা বাজারে সরকার র্মাকটেে নজিরে দোকানে মোবাইল র্সাভসিংি এর কাজ করনে। আর সে আয় থকেে পড়ালখোর খরচ যোগান সম্রাট। ছোট বলো থকেইে স্বপ্ন ছলিো কছিু আবষ্কিাররে। বয়স ১১ বছর না যতেে না যতেইে ইলকেট্রকি মস্ত্রিি হসিবেে মানুষরে বাসা-বাড়তিে কাজ শুরু করনে। তার ওস্তাদ তনিি নজিইে। একই ভাবে অন্যরে দখেে আয়ত্ব করে ফলেনে মোবাইল র্সাভসিংিয়রে কাজ।

কাজরে ধারাবাহকিতায় আবষ্কিাররে চন্তিায় দুই বছর আগে স্বপ্ন দখেনে মোবাইল ফোনরে নটের্ওয়াকরে মাধ্যমে নতুন কছিু করার। ভাবনার জগতে ডুবে যান সম্রাট, মাথায় আসে রমিোট কন্ট্রোলরে মতো মোবাইল ফোন ব্যবহার করা যায় ক-িনা।

যইে ভাবনা সইে কাজ। মোবাইল ফোনরে ব্যবহার করে ঘররে জানালা-দরজা খোলা ও বন্ধ করার পদ্ধতি আবষ্কিার করছেনে তনি।ি নজিরে ব্যবসা প্রতষ্ঠিানরে কম্পউিটাররে সাহায্যে নতুন একটি সফটওয়্যার আবষ্কিার করে তা মোবাইলে ইনস্টল করে সফল হন তনি।ি

পরীক্ষামলক ভাবে সম্রাট দুইফুট দর্ঘ্যৈ, একফুট প্রস্থ্য ও এক ফুট উচ্চতা সম্পন্ন একটি কাচরে ঘর তরৈি করনে। সইে ঘররে দরজাও কাচরে। মোবাইল ফোনে সমি লাগয়িে ঘররে ভতির দরজার সঙ্গে আটকানো হয়।

সমির্কাডে রয়ছেে গোপন পনি কোড। নজিরে মোবাইল থকেে দরজায় লাগানো মোবাইল নম্বরে পনিকোড ব্যবহার করে কল দলিে সহজইে খুলে যায় দরজার পাল্লা।

আবার প্রয়ােজন অনুযায়ী কল করলে একই পদ্ধততিে তা বন্ধ হয়ে যায়। দরজা খুলতে বা বন্ধ হতে সময় লাগে মাত্র ৩০ সকেন্ডে। তবে পদ্ধতি সচল রাখতে র্সাবক্ষণকি বদ্যিুত সংযোগ থাকা আবশ্যক। এ পদ্ধতি আবষ্কিার করতে তার প্রায় ৬ হাজার টাকা খরচ হয়ছে।ে যকেোনো ঘরে কাঠ, স্টলি, কাচ কংিবা অন্যান্য সামগ্রীর তরৈি দরজায় এই পদ্ধতি ব্যবহার করা যাব।ে

এদকিে সম্রাটরে কাজ দখেতে প্রতদিনি তার ব্যবসা প্রতষ্ঠিানে হাজারো কৌতহলী মানুষ ভড়ি করছনে।

সম্রাট জানান, এই আবষ্কিাররে পছেনে অন্য কারো সহযোগতিা নইে। কাউকে অনুকরণ কংিবা অনুসরন করওে নয়, বরং নজিরে চষ্টোয় আল্লাহ তাকে এই সফলতা দয়িছেনে।

সম্রাট বলনে, ঘরে দরজা ব্যবহারযোগ্য করে তরৈি করতে ব্যয় হবে প্রায় ১ লাখ টাকা। অধকি চন্তিা-ভাবনার মাধ্যমে এই ব্যয় কমানো সম্ভব। তবে র্আথকি অসচ্ছলতার কারণে তা দখেতে আরও কছিুদনি সময় লাগব।ে

ভবষ্যিতে বাণজ্যিকিভাবে এই পদ্ধতি বাজারজাত করার পরকিল্পনা রয়ছেে জানয়িে তনিি বলনে, এ ক্ষত্রেে সরকারি সহযোগতিা প্রয়োজন।