মোংলাকে পর্যটন শহর বানাতে চাই

মোংলা থেকে মোঃ নূর আলমঃ মোংলাকে পর্যটন শহর বানাতে চাই। ভবিষ্যতে মোংলা সিটি কর্পোরেশন হবে। শহরের প্রান হলো পানি নিষ্কাশনের পথ। পৌর এলাকায় খালের অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ করতে হবে। রাজনৈতিক দ্বন্ধ থাকতে পারে কিন্তু উন্নয়নের ব্যাপারে কোন দ্বন্ধ নেই। শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকলে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের উন্নয়ন হয়। সরকারের আন্তরিকতা এবং দায়িত্বপ্রাপ্তদের প্রচেষ্টা না থাকলে উন্নয়ন হয় না। বিএনপি’র আমলে কোন উন্নয়ন হয়নি। বৃহস্পতিবার সকালে মোংলাপোর্ট পৌরসভার আয়োজনে পৌর মিলনায়তনে বিভিন্ন প্রকল্পের উদ্বোধন পরবর্তী আলোচনা সভায় বাগেরহাট-৩ এর সংসদ সদস্য তালুকদার আব্দুল খালেক এ কথা বলেন।
বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১টায় সার্বিক উন্নয়ন কার্যক্রম বিষয়ক আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন পৌর মেয়র মোঃ জুলফিকার আলী। আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মোঃ গোলাম মোস্তফা ও উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের হ্ওালাদার। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের মেম্বর ( ইঞ্জিনিয়ার ) মোঃ আলতাপ হোসেন, মোংলা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি এইচ এম দুলাল, এম এ মোতালেব, সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ নূর আলম শেখ, মোংলা প্রেসক্লাব সভাপতি মনিরুল হায়দার ইকবাল, প্যানেল মেয়র মোঃ আলাউদ্দিন, আ্ওয়ামীলীগ নেতা সাখ্ওায়াত হোসেন মিলন, পৌর বিএনপি’র সভাপতি তোফাজ্জ্বেল হক, যুবলীগ নেতা মোঃ ইকবাল হোসেন, শ্রমিক লীগ নতা মিলন শিকারী, ছাত্রলীগ নেতা শিকদার ইয়াসিন আরাফাত প্রমূখ। প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তালুকদার আব্দুল খালেক আরো বলেন উন্নয়নমূলক কাজ করার মন-মানসিকতা থাকতে হবে। প্রধানমন্ত্রী দক্ষিণাঞ্চলের উন্নয়ন চায়। ফয়লা বিমান বন্দর হতে জয়মনি পর্যন্ত শিল্পাঞ্চল হিসেবে গড়ে উঠবে। আলোচনা সভার আগে প্রধান অতিথি তালুকদার আব্দুল খালেক এমপি মোংলাপোর্ট পৌরসভার বাস্তবায়নে সাড়ে ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত কাইনমারি খালের সুইচ গেট, কেউড়াতলা কালভার্ট ও ৩২ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিতব্য কসাই খানার উদ্বোধন করেন। এছাড়া প্রধান অতিথি তালুকদার আব্দুল খালেক সরেজমিন ঘুরে মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের কাছে পৌর কবর স্থান, স্কুল, কমিউনিটি সেন্টার, ওভারহেড পানির ট্যাংকির জন্য জমি বরাদ্দের সুপারিশ করেন। আলোচনা সভা শেষে প্রধান অতিথি মোংলা উপজেলা পরিষদ সভা কক্ষে জনপ্রতিনিধি এবং সরকারি কর্মকর্তাদের নিয়ে চলমান উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড নিয়ে মতবিনিময় করেন। বিকেলে তিনি মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষর কর্মচারি সংঘের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে প্রস্তুতিমূলক কাজের তদারকি করেন।