মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সংখ্যা নিয়ে বিতর্ক তুলে খালেদা জিয়া পাকিস্তান ও তার দোসরদের প্রচারণাকে প্রশ্রয় দিয়েছেন-মেনন

53

যুগবার্তা ডেস্কঃ বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন এমপি বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সংখ্যা নিয়ে প্রশ্ন তুলে বেগম খালেদা জিয়া শুধু মহান মুক্তিযুদ্ধের প্রতিই অবমাননা করেননি ৭১’র পরাজিত পাকিস্তান ও তাদের এ দেশীয় এজেন্টেদের মিথ্যা প্রচারণাকে প্রশ্রয় দিয়েছেন। ২০০১ সালে ক্ষমতায় এসে বিএনপি-জামাত জোট মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে মুছে দিতে নিয়ত তৎপর ছিলো কিন্তু জাগ্রত জনতা তাদের সে চক্রান্তকে নস্যাৎ করে দিয়েছে।
তিনি বলেন, ১৯৭১ এর ২৫ মার্চের কালো রাতে এখানে মানব ইতিহাসের বর্বরতম হত্যাকান্ড সংঘটিত হয়েছিলো। জাতিসংঘের তৎকালিন মহাসচিব উ-থান্ট বলেছিলেন, এ ভয়াবহতম হত্যাকান্ডের মধ্যদিয়ে পাকিস্তান রাষ্ট্রের মৃত্যু নিশ্চিত হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী প্রকাশ করা মার্কিন দলিল পত্রেও গণহত্যার প্রমাণ মিলেছে। স্বাধীনতা পরবর্তী তৎকালিন সোভিয়েত ইউনিয়নের একটি সংস্থা জরিপ চালিয়ে জানায় মুক্তিযুদ্ধে কমপক্ষে ৩ মিলিয়ন মানুষ প্রাণ হারিয়েছে। ২৫ মার্চের প্রথম প্রহরে নিষ্ঠুর হত্যাযজ্ঞে হতচকিত জাতি মুহুর্তেই ঘুড়ে দাঁড়াবার চেষ্টা করেছে। এবং বিভিন্ন স্থানে প্রতিরোধ গড়ে গড়ে উঠেছে। ২৫ মার্চ শুধু বেদনার দিনই নয় এটি আমাদের প্রতিরোধের প্রতীকও বটে।
২৫ মার্চকে আন্তর্জাতিক গণহত্যা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি পেতে শুধু জাতীয় সংসদে প্রস্তাব পাশই যথেষ্ট নয়। এর জন্য নিরবিচ্ছিন্ন প্রচারণা চালাতে হবে। কুটনৈতিক চ্যানেলেও তৎপরতা চালাতে হবে। সামাজিক মাধ্যমগুলোকেও ব্যবহার করতে হবে।
৭১ এর ২৫ মার্চকে গণহত্যা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি আদায়ে শনিবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত এ আলোচনা সভায় আরও বক্তৃতা করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি আআমস আরেফিন সিদ্দিক।