“মিডিয়ায় শিশুদের জন্য শিশু-বান্ধব অনুষ্ঠান রাখা উচিৎ”–সমাজকল্যাণমন্ত্রী

যুগবার্তা ডেস্কঃ “আজকের শিশুরাই আমাদের আগামী ভবিষ্যত। এই শিশুদেরকে সুশিক্ষা না দিলে,তাদের খাদ্যের নিরাপত্তা,তাদের বিনোদনের প্রয়োজনীয়তা না দিতে পারলে এই শিশুরা বিপজ্জনক হয়ে উঠতে পারে।মাদক,চোরাচালানসহ অন্যান্য ঝুকিপুর্ণ কাজে এখনও শিশুদের ব্যবহার করা হচ্ছে। কিছু ঠিকানাহীন শিশু পথে ঘুমাচ্ছে।এটা আমাদের ভবিষ্যতের জন্য সুখকর বিষয় নয়।এক্ষেত্রে শুধু সরকারকেই দোষ দিলে চলবে না।সরকারিভাবে আমরা নানা ধরনের উদ্যোগ নিয়েছি।আমরা শিশুদের জন্য অনেকগুলো আইন করেছি,শিশু শ্রম বন্ধে উদ্যোগ নিয়েছি,শিশুদের ভাতা দিচ্ছি,মানসিক প্রতিবন্ধী শিশুদের কারিগরী প্রশিক্ষণ দিচ্ছি,বাংলা একাডেমির মাধ্যমে সরকার এবছর প্রায় ৩৫ হাজার শিশুকে প্রশিক্ষণ দিয়েছে,বাংলা একাডেমি কর্তৃক এবছরের সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় দুই লাখের বেশি শিশু প্রার্থী প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছে।শিশুদের জন্য হাসপাতাল তৈরি করা হয়েছে,স্বাস্থ্য সেবায় প্রতিবন্ধী শিশুদের বিশেষ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।সরকারের এই ভাল কাজগুলির পাশাপাশি শিশুদের জন্য গনমাধ্যম কর্মীদের এগিয়ে আসতে হবে।সংবাদ পত্রে কেবল মুখরোচক খবর আর নায়ক নায়িকাদের রঙিন ছবি দেখালেই হবে না,তাদের সামাজিক নিরাপত্তা ও উন্নয়নের কথাও তুলে ধরতে হবে।”

আজ সকালে কারওয়ান বাজারস্ত দৈনিক ইত্তেফাক কার্যালয়ে “বাংলাদেশ শিশু সুরক্ষা ও উন্নয়ন : এস.ও.এস শিশু পল্লীর ভূমিকা” শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে কথাগুলো বলেছেন সমাজকল্যাণমন্ত্রী ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, এমপি।

মন্ত্রী মেনন সভায় আগত সকলের কথা শোনেন ও বক্তাদের তুলে ধরা নানা সামাজিক সুরক্ষার প্রস্তাবগুলো নিয়ে তার মন্ত্রণালয় নিরলস কাজ করে যাবে বলে আশ্বাস দেন।

দৈনিক ইত্তেফাকের সম্পাদক তাসমিমা হোসেনের সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যদের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন বরিশাল ৫ আসনের সাংসদ জেবুন্নেছা আফরোজ,মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব নাছিমা বেগম এনডিসি সহ অন্যান্য মিডিয়া ব্যক্তিত্ব।অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন এসওএস আন্তর্জাতিক শিশু পল্লী বাংলাদেশের ন্যাশনাল ডিরেক্টর গোলাম আহমেদ ইসহাক,মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন এসওএস এর পরিচালক চায়না রানী সাহা।