মাশা আমিনি হত্যার বিচার ও মোল্লাতন্ত্রের বিরুদ্ধে গড়ে ওঠা আন্দোলনে সংহতি জানিয়ে সমাবেশ

ডেস্ক রিপোর্ট: আজ ২৪ সেপ্টেম্বর বিকাল ৪.৩০ মিনিটে ইরানের মাশা আমিনি হত্যার বিচার ও মোল্লাতন্ত্রের বিরুদ্ধে গড়ে ওঠা আন্দোলনের সাথে সংহতি জানিয়ে সমাবেশ করে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট ও সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরাম। প্রকৌশলী শম্পা বসুর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন বজলুর রশীদ ফিরোজ, সাধারণ সম্পাদক, বাসদ,কেন্দ্রীয় কমিটি। মনীষা চক্রবর্তী – সাংগঠনিক সম্পাদক,সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরাম, ভাস্কর রাশা, নাসির উদ্দিন প্রিন্স, সাবেক সাধারণ সম্পাদক, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট, রুখসানা আফরোজ আশা,দপ্তর সম্পাদক, সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরাম, মুক্তা বাড়ৈ – সভাপতি, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট, কেন্দ্রীয় কমিটি। সুস্মিতা মরিয়ম- সংগঠক, বিজ্ঞান আন্দোলন মঞ্চ। সংহতি সমাবেশে বক্তারা বলেন, ইরানে মাশা আমিনি হত্যার প্রতিবাদে ইরানের গণতান্ত্রিক চেতনা সম্পন্ন সকল মানুষ আন্দোলন গড়ে তুলেছেন। সেই আন্দোলন দমন করতে ইরানের সরকার আন্দোলনকারীদের উপর দমন – পীড়ন চালাচ্ছে। বেসরকারি হিসেবে ৫০ এর অধিক মানুষকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। দমন পীড়ন চালিয়েও আন্দোলনকে স্তিমিত করা তো যাচ্ছেই না বরং ৮০ টির মত শহরে ছড়িয়ে পড়ছে আন্দোলন। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে দেশে গণতান্ত্রিক চেতনা সম্পন্ন মানুষও এই নৈতিক আন্দোলন এ সংহতি জানিয়েছেন।

দীর্ঘ প্রায় ৪৩ বছর ধরে কথিত শরীয়াহ শাসনে ইরানে নারীদের উপর চলছে চূড়ান্ত নির্যাতন-নিপীড়ন। ধ্বংস করা হয়েছে পারস্য সভ্যতার সকল প্রগতিশীল উপাদান। নৈতিক পুলিশ নামক বাহিনী গঠন করে নারীকে অবরুদ্ধ করা হয়েছে। আর এই দমবন্ধ পরিস্থিতির বিরুদ্ধে পুঞ্জিভূত ক্ষোভের প্রকাশ ঘটেছে ইরানের জনগণের এই আন্দোলনে।

বক্তারা বলেন, একদিকে সাম্রাজ্যবাদী-পুজিবাদী ব্যবস্থা নারীকে করছে ভোগ্যপণ্য আবার অন্যদিকে মোল্লাতন্ত্র নারীকে গৃহবন্দী করে রাখতে চাচ্ছে। তাই পুজিবাদ ও মৌলবাদ উভয় বিরোধী সংগ্রামকে জোরদার করার আহবান জানান তারা। এ আন্দোলনে এ পূর্ণ সংহতি জানিয়ে বক্তারা আরও বলেন – অবিলম্বে মাশা আমিনি হত্যার বিচার এবং নারী বিদ্বেষী সকল শরিয়া আইন বাতিল করে একটি গণতান্ত্রিক সমাজ নির্মাণের দাবি মেনে নিন।