মার্কিন মন্ত্রীর সফর প্রসঙ্গে ওয়ার্কার্স পার্টির প্রতিক্রিয়া

40

যুগবার্তা ডেস্কঃ“বাংলাদেশে জঙ্গিবাদের উদ্ভব এবং এর প্রেক্ষাপট ভিন্ন এটা সকলকে উপলব্ধি করতে হবে। বাংলাদেশকে যারা স্বাধীন দেখতে চায়নি এবং মুক্তিযুদ্ধকে যারা বিজয়ী দেখতে চায়নি তারাই জঙ্গীবাদের সৃষ্টিকারী এবং তারাই এর প্রসার ঘটিয়েছে। এই জঙ্গীবাদের পিছনে মূল যে রাজনীতি কাজ করছে তা হলো বাঙালী জাতীয়তাবাদ যার মর্মবস্তু হচ্ছে অসাম্প্রদায়িক চেতনা। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রই প্রথম ধর্মনিরপেক্ষ বাংলাদেশকে উদারনৈতিক ইসলামী দেশ হিসেবে উল্লেখ করে সাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র বানানোর প্রচেষ্টায় লিপ্ত হয়েছিল। এমনকি যুদ্ধাপরাধী দল জামাতে ইসলামীকে ‘মডারেট মুসলীম’ দল হিসেবে উল্লেখ করতে দ্বিধাবোধ করেনি।” আজ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পররাষ্ট্র মন্ত্রী নিশা দেশাই বিসওয়ালের জঙ্গীবাদ দমনে তার সরকার সহায়তা প্রদান বিষয়ে ওয়ার্কার্স পার্টি পলিটব্যুরোর পক্ষে কমরেড ফজলে হোসেন বাদশা এক বিবৃতিতে একথা বলেন। বিবৃতিতে আরো বলা হয়,আরব বিশ্বের জঙ্গীবাদ এর উৎস এবং এদেশে জঙ্গীবাদের উদ্ভবের অতীত ভিন্ন। পরাজয়ের প্রতিশোধ নিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ঘনিষ্ট মিত্র পাকিস্তান এদেশের জঙ্গীবাদীদের বাংলাদেশের রাজনৈতিক স্থিতি নষ্ট করতে দির্ঘদিন মদদ দিয়ে আসছে। মার্কিন সহকারী পররাষ্ট্র মন্ত্রী নিশা দেশাই বিসওয়ালের কথিত ‘হোম গ্রোন জঙ্গী’ নেটওয়ার্কের উদ্ভব একই ইতিহাসের সূত্রে গাথা। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সবসমই বাংলাদেশের জঙ্গীবাদের সঙ্গে বিদেশের সংশ্লিষ্টতার কথা বলে এসেছে, তার যথার্থতা এখনও প্রমানিত হয়নি। কোন জঙ্গী কার কৌশলের দিক্ষা নিচ্ছে এবং যোগাযোগ রাখছে তা পরীক্ষা নিরীক্ষা করা যেতে পারে। কিন্তু আরব দেশ সমূহ থেকে এসে এখানে জঙ্গীবাদী তৎপরতা চালানোর বিষয়ে কোন প্রমাণ এখনো ধরা পড়েনি। আমরা জঙ্গীবাদী তৎপরতা রোধে আন্তর্জাতিক সহযোগীতাকে স্বাগত জানাবো। তবে তা দেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্বকে বিপন্ন করে নয়। যে সকল পশ্চিমা দেশ জঙ্গীবাদ দ্বারা আক্রান্ত তারাও জঙ্গীবাদ প্রতিরোধে কোন দৃষ্টান্ত দেখাতে পারেনি। মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রী নিশা দেশাই বলেছেন জঙ্গী মোকাবেলায় সরকারের ঘাটতি আছে। কিন্তু কোন বিষয়ে ঘাটতি তা সুনির্দিষ্ট করেন নাই। তবে এদেশের মানুষ অতীতে সাম্প্রদায়িকতা ও উগ্র ধর্মান্ধতার বিরুদ্ধে লড়াই করে বিজয়ী হয়েছে। এবারো জনগণ ঐক্যবদ্ধ থেকে এই জঙ্গীবাদী তৎপরতাকে পরাজিত করবে।