মানুষ বোঝে হাসিনার অধীনে নির্বাচন হলে কী হয় : খালেদা জিয়া

46

যুগবার্তা ডেস্ক: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, হাসিনাকে ক্ষমতায় রেখে কোনো নির্বাচন হতে দেওয়া হবে না। নির্বাচন হবে সহায়ক সরকারের অধীনে।
বুধবার বসুন্ধরা কনভেনশন সেন্টারে এক ইফতার মহফিলে তিনি দেশের জনগণের উদ্দেশ্যে ধানের শীষে ভোট চান। ইফতার মাহফিলটি আয়োজন করে ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপি।

ধানের শীষে ভোট চেয়ে খালেদা জিয়া বলেছেন, সামনে আসছে শুভ দিন ধানের শীষে ভোট দিন। আওয়ামী লীগ সরকার নির্বাচনকে সবচেয়ে বেশী ভয় পায়। আওয়ামী নির্বাচনে কিভাবে চুরি করে তা প্রতিটি পত্রিকায় প্রকাশ হয়েছে। তারা ভাবছে আগামী নির্বাচনেও চুরি করে ক্ষমতায় বসবে, না তাদেরকে এবার চুরি করে ক্ষমতা বসতে দিবে না জনগণ। আর যদি মনে করে আওয়ামী লীগ একতরফা নির্বাচন করে ক্ষমতায় আসতে চায় তা করতে দেয়া হবে না। এবারের নির্বাচন হবে সকল দলের অংশগ্রহণের নির্বাচন।
তিনি বলেন, হাসিনাও নির্বাচনে অংশ নিবে কিন্তু তার অধীনে কোন নির্বাচন হবে না। এদেশের জনগণ বুঝে গেছে হাসিনার অধীনে নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না।
বিএনপি নির্বাচনকে ভয় পায় না উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমরা নির্বাচনকে ভয় পাই না। আমরা নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করবো। তবে সেই নির্বাচন হতে হবে সকল দলের অংশগ্রহণে। যেখানে সকল জনগণ তাদের গণতান্ত্রিক ভোটের অধিকার প্রয়োগ করতে পারবে। নিরপেক্ষ নির্বাচন হলেই জনগণ বুঝিয়ে দিবে আওয়ামী লীগের জনপ্রিয়তা কেমন
একদিকে আওয়ামী লীগ দেশ থেকে অর্থপাচার করছে অরেক দিকে তারা মানুষ গুম, খুন, মামলা, হামলা নিয়েই তারা ব্যাস্ত রয়েছে। পুলিশ দিয়ে তারা দেশের মানুষদের দমন করে রাখবে, কিন্তু না এটা কোনো দিনই পারেনি কেউ, এরাও পারবে না। পুলিশ দিয়ে এ দেশের মানুষকে দমন করে রাখা যাবে না। সরকার বিরোধী দলকে দমন করার জন্য বিএনপির নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করছে। নতুন নতুন মামলা দিয়ে কারাগারে পাঠাচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন খালেদা জিয়া।
দেশের অবস্থার কথা বর্ণণা করে তিনি বলেন, দেশের অবস্থা খুব খারাপ। দ্রব্য মূল্যের দাম দিন দিন বেড়েই চলেছে। মানুষ এখন দু-বেলা ভাল ভাবে খেতে পারে না। এ সরকার গ্যাসের দাম, বিদ্যুতের দাম, দ্রব্যমূল্যের দাম, ঘর ভাড়া বাড়িয়েছে। সরকার সাধারণ এবং গরীব মানুষদের সমস্যা সমাধানের কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না। সরকার বুঝতে পেরেছে তাদের সময় শেষ হয়ে গেছে। এই জন্যই তারা লুটপাট করে যা পারে নিয়ে যাচ্ছে।-আমাদের সময়.কম