মাইনাস টু ফর্মুলায়’ জড়িত ছিলেন দুই সম্পাদক: প্রধানমন্ত্রী

44

যুগবার্তা ডেস্কঃ প্রথম আলো এবং দ্য ডেইলি স্টার সম্পাদকের প্রতি ইঙ্গিত করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, জরুরি অবস্থার সময় সম্পাদকদ্বয় ‘মাইনাস টু ফর্মুলা’র সঙ্গে জড়িত ছিলেন, তাদের বিচার হবে।
ওই সময় অসত্য প্রতিবেদন ছাপানোর দায়ে দ্য ডেইলি স্টার সম্পাদক মাহফুজ আনামকে পদত্যাগেরও আহ্বান জানান তিনি।
সোমবার বিকালে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় এ আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।
তিনি বলেন, ‘দুটি পত্রিকা (প্রথম আলো ও দ্য ডেইলি স্টার ) ডিজিএফআইয়ের লিখে দেয়া মিথ্যা সংবাদ ছাপিয়ে সে সময় রাজনীতি থেকে আমাকে এবং খালেদাকে চিরদিনের জন্য সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা চালিয়েছে।’
শেখ হাসিনা বলেন, ‘ডেইলি স্টার সম্পাদক মাহফুজ আনাম আমাকে দুর্নীতিবাজ বানানোর জন্য বহু চেষ্টা করেছিলেন। তিনি স্বীকারও করেছেন- ডিজিএফআইয়ের চাপে তিনি সেসব নিউজ ছেপেছিলেন।’
এখন ভুল স্বীকার করায় তাই তার পদত্যাগ করে সাংবাদিকতা থেকে সরে আসা উচিত বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
শেখ হাসিনা বলেন, ‘পত্রিকা দুটি প্রতিষ্ঠার কয়েক বছর একটু নিরপেক্ষ ছিল। এর পরে গোটা ২০টি বছর আমার রাজনীতির জীবনে এই পত্রিকাগুলো শুধু আমার বিরুদ্ধে কুৎসাই রটনা করে গেছে, আমার বিরুদ্ধে লিখে গেছে।’
তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ যেন তাদের শত্রু। ৃ যখন লিখেছে, লেখার শেষে একটা খোঁচা দিয়ে ছেড়েছে। এটাই ছিল ওই পত্রিকার চরিত্র, এবং তাদের মুখোশ উন্মোচন হয়েছে।’
প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিগত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে বিনা ওয়ারেন্টে তাকে গ্রেফতার করে সলিটারি কনফাইনমেন্টে পাঠানো হয়। গ্রেফতারের সময় তার অসুস্থ স্বামীকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়া হয়। কারাগারে কাউকে দেখা করতে দেয়া হয়নি। অসুস্থ হয়ে পড়লেও চিকিৎসা করানো হয়নি।
তিনি বলেন, সেখানে স্যাঁতস্যাঁতে ঘরে তাকে থাকতে দেয়া হয়। ছেঁড়া কম্বলে তার গায়ে অ্যালার্জি উঠে যায়, চোখে সমস্যা দেখা দেয়। এরপর পরীক্ষা করে চিকিৎসকরা হাসপাতালে নেয়ার পরামর্শ দিলেও তাকে কারাগারেই পাঠানো হয়।