মংলায় বিশ্ব বাঘ দিবস পালন

মংলা থেকে মোঃ নূর আলমঃ নানা কর্মসুচির মধ্য দিয়ে মংলায় সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জ এলাকায় বন বিভাগের আয়োজনে আজ শুক্রবার সকালে বিশ্ব বাঘ দিবস-২০১৬ পালিত হয়েছে। কর্মসুচির মধ্যে ছিলো র‌্যালী, আলোচনা সভা ও প্রামান্য চিত্র প্রদর্শনী।
’বাঘ আমাদের জাতীয় প্রানী, সবাই মিলে বাঘ রক্ষা করি’ শ্লোগানে শুক্রবার সকালে বাঘ দিবসের বর্ণাঢ্য র‌্যালী শেষে মংলা উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের সহকারি বন সংরক্ষক মোঃ বেলায়েত হোসেন। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু তাহের হ্ওালাদার। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা নির্বাহি অফিসার মুহাম্মদ আলী প্রিন্স। এছাড়া বক্তব্য রাখেন সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জ সহ-ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি মোঃ শফিকুল ইসলাম রাসেল, সহ-সভাপতি মোঃ লুৎফর গাজী, পিপল্স ফোরামের সভাপতি মোঃ ওলিয়ার রহমান, টাইগার রেসপন্স টিমের মোঃ আলমগীর হোসেন প্রমূখ। আলোচনা সভায় বক্তারা বাঘ রক্ষায় সুন্দরবন রক্ষা, জলদস্যু দমন এবং দেশী-বিদেশী বাঘ পাচারকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানান। আলোচনা সভার আগে সুন্দরবনের উপর নির্মিত বিভিন্ন প্রামান্য চিত্র দেখানো হয়। উল্ল্যেখ্য বাংলাদেশের সুন্দরবনে ২০০৪ সালে বাঘ শুমারি অনুযায়ী বাঘের সংখ্যা ছিলো ৪৪০ টি। সর্বশেষ ২০১৫ সালে বাংলাদেশে ২য় বাঘ জরিপের ফলাফল অনুযায়ি বাঘ কমে দাড়িয়েছে ১০৬টি তে। ইন্টারপোলের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে বাংলাদেশের সুন্দরবন থেকে বাঘ হত্যা করে এর অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ ভারতে পাচার করা হয়। প্রতিবেদনে বলা হয় পাচারের সংগে রাজনৈতিক প্রভাবশালী মহলের সাথে দুই দেশের সীমান্ত রক্ষীরাও জড়িত। বাঘ কমে য্ওায়ার বিষয়ে সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের পিপলস ফোরাম এবং সুন্দরবনের চাদপাই রেঞ্জ সহ-ব্যবস্থাপনা কমিটির নেতৃবৃন্দ সুন্দরবন উজাড় হওয়া, জলদস্যু এবং দেশী-বিদেশী পাচারকারীদের দায়ী করছেন। সুন্দরবনের বাঘ লোকালয়ে আসলে তা বনে ফেরত পাঠানোর জন্য কাজ করছে ভিলেজ টাইগার রেসপন্স টিম। তারা নিষ্ঠা এবং গর্বের সাথে স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে এই কাজ করছেন বলে জানিয়েছেন। বন বিভাগের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে বাঘ সুরক্ষার জন্য নেয়া হয়েছে নানা মুখী পদক্ষেপ। ইতিমধ্যে স্মার্ট পেট্রোলিং এর ব্যবস্থা করা হয়েছে। সুন্দরবনের কম্পার্টমেন্ট বাড়ানো হয়েছে। এছাড়া জনসাধারনকে সাথে নিয়ে সচেতনতা সৃষ্টির জন্য কাজ করা হচ্ছে।