ভ্রমণ সতর্কতার নামে পশ্চিমা রাষ্ট্রের বাংলাদেশের উপর চাপ সৃষ্টির নতুন হীন প্রয়াস কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য নয় -ওয়ার্কার্স পার্টি

90

যুগবার্তা ডেস্কঃ বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি পলিটব্যুরো যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কর্তৃক বাংলাদেশে পশ্চিমা নাগরীকদের উপর “আরো হামলা ঘটনা হতে পারে” আশঙ্কায় তাদের দেশের নাগরীকদের বাংলাদেশে ভ্রমণ সতর্কতা জারির বিষয়ে গভীর ক্ষোভ ও উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। বিবৃতিতে বলা হয় বাংলাদেশের সরকার কর্তৃক যথেষ্ট নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা নেওয়া সত্ত্বেও যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কর্তৃক এই নির্দেশনা জারি অত্যন্ত দূর্ভাগ্যজনক। বিবৃতিতে বলা হয় বাংলাদেশের প্রতি আন্তর্জাতিক মহলে বিরূপ ও নেতীবাচক মনোভাব সৃষ্টির জন্যই অত্যন্ত কৌশলে এই ভ্রমণ সতর্কতার নামে এই নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। বিবৃতিতে বলা হয় যুক্তরাজ্যের বাংলাদেশস্থ দূতাবাস নিশ্চিত করেই জানে; সম্প্রতি বাংলাদেশে দু’জন নাগরীকের দুঃখজনক হত্যা বিষয়ে যে প্রমাণ মিলছে এবং কারা এ ধরনের ঘটনার সাথে জড়িত। বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে এ ধরনের হত্যা হামলা ঘটেছে। বিবৃতিতে বলা হয়, সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রে দু’টি কলেজে অস্ত্রধারীদের সন্ত্রাসী হামলায় বহু প্রাণহানীর ঘটনা ঘটেছে। ইতিপূর্বেও সেখানে আকস্মিক সন্ত্রাসী হামলা অনেকের প্রাণহানী ঘটেছে। যেখানে বিদেশী নাগরীকরাও নিরাপদ নন। তাই বলে কি বিদেশী নাগরীকদের সংশ্লিষ্ট দেশ সেখানে ভ্রমণ সতর্কতা জারি করে? খোদ যুক্তরাজ্যেরও কি এই সাহস আছে যে যুক্তরাষ্ট্র সফরে তাদের নাগরীকদের ভ্রমণ সফরে সতর্কতা জারি করে। বরঞ্চ যুক্তরাজ্যের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে বাংলাদেশে প্রতিবছর ৭৫ হাজার যুক্তরাজ্যের নাগরীক ভ্রমণ করে। এযাবৎ তাদের নিরাপত্তার কোন অভাব বোধ হয়নি। বাংলাদেশে অবস্থানরত কুটনিতিকরাও বাংলাদেশের নিরাপত্তা ব্যবস্থায় সন্তোষ প্রকাশ করেছে।
বিবৃতিতে বলা হয়, বাংলাদেশ জঙ্গীবাদ দমনে জিরো টলারেন্স দেখাচ্ছে। আন্তর্জাতিক মহলের উচিৎ বাংলাদেশের এই উদ্যোগকে সার্বিকভাবে সহায়তা করা। বিবৃতিতে বলা হয়, ভ্রমণ সতর্কতার নামে যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র ও অস্ট্রেলিয়া সহ বিভিন্ন পশ্চিমা রাষ্ট্রের বাংলাদেশের উপর চাপ সৃষ্টির নতুন এই হীন প্রয়াস কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। বাংলাদেশ পরাশক্তির ভ্রুকুটি উপেক্ষা করেই মুক্তিযুদ্ধ করেই মুক্ত স্বাধীন দেশ অর্জন করেছে। ভবিষ্যতেও এই দেশ কোন অর্থনৈতিক চাপের কাছে মাথা নত করবে না।