ভ্যাট আইন ‘বাস্তবসম্মত’ হবে

32

যুগবার্তা ডেস্কঃ বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, ব্যবসায়ীদের ওপর ক্ষতিকর প্রভাব পড়ে এমন কোনো সিদ্ধান্ত সরকার নেবে না। রমজান মাস সামনে রেখে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে মঙ্গলবার নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের সরবরাহ ও মূল্য পরিস্থিতির পর্যালোচনা সভায় ভ্যাট আইন ‘বাস্তবসম্মত’ হবে বলে নতুন ভ্যাট আইন নিয়ে উদ্বিগ্ন ব্যবসায়ীদের আশ্বস্ত করে করেছেন মন্ত্রী।
সভায় ঢাকার মৌলভীবাজার পাইকারি ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মোহাম্মদ এনায়েতুল্লাহ বলেন, “আমরা যারা মৌলভীবাজারে ব্যবসা করি, আমাদের সাথে ভোক্তাদের কোনো যোগাযোগ নেই, ভ্যাটতো দিবে ভোক্তা।
“আমাদের থেকে ব্যবসায়ীরা খরিদ করে। যেমন কারওয়ান বাজার, ঠাঠারি বাজার, নিউ মার্কেটের ব্যবসায়ীরা আমাদের থেকে খরিদ করে। এরপরও যদি আইন করে আমাদেরকে ভ্যাট দিতে বাধ্য করেন, তাহলে মৌলভীবাজার বিলুপ্ত হয়ে যাবে। কারওয়ান বাজার সরাসরি খাতুনগঞ্জ থেকে নেবে।”
জুলাই থেকে প্রয়োগের অপেক্ষায় থাকা ভ্যাট আইনে আমদানি, উৎপাদন, পাইকারি ও খুচরা পর‌্যায়ে ভ্যাট আরোপের কথা বলা হয়েছে বলে দাবি করে তা সংশোধন করে কেবল খুচরা পর্যায়ে ভ্যাট আরোপের পক্ষে মত দেন তিনি।
এই বিষয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী ও অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা ও প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন করা হয়েছে বলে সভায় জানান দেশের ব্যবসায়ী ও শিল্পপতিদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি আবদুল মাতলুব আহমাদ।
ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেনস, “আপনারা ঘাবড়াবেন না। প্রধানমন্ত্রী এমন কিছু করবেন না, যাতে ব্যবসায়ীদের আঘাত আসে।
“যেটা যৌক্তিক, যেটা এনবিআর এবং ফেডারেশন মিলে কমিটি করে ৭টি সংশোধনী চেয়েছে, আমি আশা করি, সেই ৭টি সংশোধনীর আলোকেই আমাদেরকে নতুন ভ্যাট আইন উপহার দিবেন।”
অনুষ্ঠানে আরো কয়েকজন ব্যবসায়ী নতুন ভ্যাট আইন নিয়ে আপত্তি তুলে ধরেন।
পরে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, “মনে রাখবেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা ব্যবসাবান্ধব সরকার। আমি আপনাদেরকে আশ্বস্ত করতে চাই, এই সরকার এমন কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে না, যার বিরূপ প্রতিক্রিয়া ব্যবসায়ী সম্প্রদায়ের মধ্যে পড়বে। আমরা বাস্তবসম্মত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করব।
“যে সব সুবিধা আপনারা পেয়ে আসছেন, পেয়ে থাকেন, সেই সব সুবিধাকে বাতিল করে নতুন কোনো কিছু আপনাদের উপর চাপিয়ে দেওয়ার কোনো সিদ্ধান্ত আমরা নিতে চাই না। এই ব্যাপারে আমাদের প্রধানমন্ত্রী, বিশেষ করে অর্থমন্ত্রীও যতœবান।
“তিনি নিজেও উপলদ্ধি করেছেন, ভ্যাট নিয়ে একটা বাস্তবসম্মত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। আপনাদের কেউ অসন্তুষ্ট হওয়ার কোনো কারণ থাকবে বলে মনে হয় না।”
এবিষয়ে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডর (এনবিআর) সাবেক সদস্য আলী আহমদের নেতৃত্বে গঠিত কমিটির প্রস্তাবনাকে বিবেচনা করা হয়েছে বলে জানান তোফায়েল।
“সুতরাং ভ্যাট নিয়ে কোনো চিন্তার কারণ হবে বলে আমরা মনে করি না। প্রকৃতটা কী- সেটা অর্থমন্ত্রী বাজেটে বলবেন।আমার দৃঢ় বিশ্বাস, আপনাদের কারো অসুবিধা হবে না।”