ভোট ছাড়াই আওয়ামী লীগের ২৫ ইউপি

42

যুগবার্তা ডেস্কঃ প্রথম ধাপে ৭৩৮ ইউনিয়ন পরিষদে মনোনয়নপত্র দাখিল শেষ হওয়ার পর দেখা গেছে, ২৫টিতে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে চলছেন। আগামী ২২ মার্চ অনুষ্ঠেয় এই ভোটে ৭০টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে বিএনপির কোনো প্রার্থী নেই
প্রার্থী হতে বাধা ও হুমকি দেওয়া হচ্ছে বলে বিএনপির অভিযোগের মধ্যে সোমবার দেশজুড়ে ৭৩৮টি ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচনের মনোনয়নপত্র জমা নেওয়া শেষ হয়।
স্থানীয় সরকার আইন সংশোধনের পর এবারই প্রথম চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রতীকে ভোট হচ্ছে। সদস্য পদে ভোট আগের মতোই নির্দলীয়ভাবে হচ্ছে।
ইসি থেকে পাওয়া তথ্যে দেখা যায়, ২৫টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ছাড়া অন্য কোনো দলের প্রার্থী নেই।
আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ২৫ প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। অন্যদিকে প্রথম ধাপে ঘোষিত তফসিলে বিএনপি ৪৫ ইউপিতে কোন প্রার্থী দেয়নি।
মঙ্গলবার দুপুরে নির্বাচন কমিশনের যুগ্ম সচিব জেসমিন টুলি এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, প্রথম ধাপে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ৭৩৯টি ইউপির নির্বাচন আগামী ২২ মার্চ। সোমবার ২২ ফেব্রুয়ারি প্রথম ধাপের মনোনয়ন জমা দেয়ার শেষ তারিখে ২৫টি ইউপিতে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর বিপরীতে অন্য কোন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেয়নি। ফলে ওইসব ইউপিতে আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হয়েছে।
জেসমিন টুলী আরও জানান, প্রথম দফা ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৭৩৯ ইউপিতে লড়াইয়ে নেমেছে ৩৫৬৮ জন। সোমবার মনোনয়নপত্র জমাদানের শেষ দিনে এ তথ্য পাওয়া গেছে। সেখানে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আওয়ামী লীগের ২৫ চেয়ারম্যান প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন আর বিএনপি ৪৫টি ইউপিতে কোন প্রার্থী দেয়নি।
এদিকে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ইউপি নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমাদানে বাধা দেয়া হচ্ছে। তিনি আরো বলেন, ভোটারবিহীন দখলবাজ সরকার ভোট, নির্বাচন, জনমত, জবাবদিহিতা, পরমতসহিষ্ণুতাসহ প্রকৃত গণতন্ত্রের সকল উপাদানগুলোকে নির্বাসিত করে দেয়ার পর একক ক্ষমতার আতিশয্যে তাদের মধ্যে হিংস্রতা ও আগ্রাসন দিনকে দিন বেড়েই চলছে। এই কারণেই তারা আসন্ন ইউপি নির্বাচনকে আরেকটি দখলবাজী মহড়ার একটি উৎকৃষ্ট মডেল বানাতে চায়।
নির্বাচনে অংশ নেওয়া রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে- আওয়ামী লীগের ৭৪১, বিএনপি ৬৬৮, জাপা ১৪৮, জাসদ ৩০, ইসলামী আন্দোলন ২৪৫, বিকল্প ধারা ৫, ওয়ার্কার্স পার্টি ২৪, জেপি ২০, ন্যাপ ২, বিএনএফ ৭, কমিউনিস্ট পার্টি ৪, জে এসডি (রব) ১, তরিকত ফেডারেশন ১, কৃষক শ্রমীক জনতা লীগ ১, ইসলামী ঐক্য ১, জমিয়তে ওলামা ২, কল্যাণ পার্টি ১ ও জাকের পার্টি ১ জন।
প্রসঙ্গত, ছয় ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন আয়োজন করবে ইসি। প্রথম ধাপে ২২ মার্চ ৭৩৯টি ইউনিয়নে ভোট হবে। যদিও তসফিস হয়েছিল ৭৫২টিতে। মেয়াদ উত্তীর্ণ না হওয়া ও সীমানা জটিলতার কারণে ১৩ টিতে ভোট হচ্ছে না।