ভারতের গুজরাট দাঙ্গায় ১১ জনের যাবজ্জীবন

52

যুগবার্তা ডেস্কঃ ২০০২ সালের ভারতের গুজরাটে মুসলিম বিরোধী দাঙ্গায় জড়িত থাকার দায়ে ১১ জনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছে দেশটির একটি আদালত। কথিত গুলবার্গ সোসাইটি হত্যাকান্ডে দোষী সাব্যস্ত হওয়া ২৪ জনের মধ্যে, বাকি ১২ জনকে ৭ বছরের কারাদ- দেয়া হয়েছে। এক ব্যাক্তিকে দেয়া হয়েছে ১০ বছরের জেল। এ খবর দিয়েছে বিবিসি।
খবরে বলা হয়েছে, গুলবার্গ সোসাইটি হত্যাকান্ডে ৬৯ জনকে কুপিয়ে ও আগুণে পুড়িয়ে হত্যা করেছে একদল লোক। তবে গোটা দাঙ্গায় ১ হাজারেরও বেশি মানুষ নিহত হয়, যাদের বেশিরভাগই মুসলমান। হিন্দু পূণ্যার্থিবাহী ট্রেনে অগ্নিকা- থেকে এ দাঙ্গার সূত্রপাত। ওই অগ্নিকান্ডে ৬০ পূর্ণ্যার্থী নিহত হন।
ওই সময় গুজরাট রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন ভারতের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তার সমালোচকদের অভিযোগ, দাঙ্গা থামাতে তার প্রশাসন তেমন কিছুই করেনি। আহমেদাবাদের বিশেষ আদালত এ ঘটনাকে ‘সভ্য সমাজের ইতিহাসে অন্ধকারতম দিন’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছে।
তবে দাঙ্গায় নিহত হওয়াদের মধ্যে অন্যতম এহসান জাফরি, যিনি কংগ্রেস দলের দলের তৎকালীন এমপি ছিলেন, তার স্ত্রী জাকিয়া জাফরি এই রায়ে হতাশা প্রকাশ করেছেন। তিনি রায় শেষে সাংবাদিকদের বলেন, ‘এহসান জাফরিকে যখন হত্যা করা হয়, তখন আমি সেখানে ছিলাম। এটা কোন ন্যায়বিচারই নয়।’
গুলবার্গ গণহত্যায় বেঁচে যাওয়া ব্যাক্তিরা বলছেন, তার বাড়িতে একদল লোক আক্রমণ করলে আত্মরক্ষার তাগিদে তিনি গুলি ছোড়েন। জাকিয়া বলেন, মুখ্যমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কাছে তার স্বামী সাহায্য চেয়ে ফোন করেছিলেন। কিন্তু সাহায্য একেবারেই আসেনি।