ভারতীয় সিরিয়ালের তারকারা এবার শিক্ষার্থীদের খাতায় ধ্বংশের মুখে শিক্ষা ব্যাবস্থা

101

কল্যাণ কুমার চন্দ,বরিশাল ॥
পোশাক পরিচ্ছদের পর এবার ভারতীয় স্টার জলসার সিরিয়ালের প্রভাব পড়েছে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার খাতার প্রচ্ছদে। বরিশালের স্কুল শিক্ষার্থীদের হাতে পাঠ্যপুস্তকের সাথে এখন শোভা পাচ্ছে ভারতীয় কলকাতার সিরিয়ালের নায়ক-নায়িকাদের ছবিসংবলিত মলাটের খাতা। এক শ্রেনীর অধিক মুনাফলোভী খাতা প্রস্তুতকারীরা পাইকারী ব্যবসায়ীদের মাধ্যমে এ খাতা পৌঁছে দিচ্ছেন গ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চলে। এতে করে শিক্ষার্থীদের মাঝে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে বলে মনে করছেন সচেতন নাগরিকেরা।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক বিক্রেতারা জানান, এসব খাতা শিশু থেকে শুরু করে স্কুল শিক্ষার্থীদের কাছে বিক্রি করাটা দৃষ্টিকটু হলেও এর চাহিদা ভালো। তাই তারা বিক্রি করছেন। অসংখ্য শিক্ষক ও অভিভাবকেরা জানান, বিশেষত মায়েরা কলকাতার টিভি চ্যানেল স্টার জলসার সিরিয়ালের প্রতি আসক্ত হওয়ায় শিশুশিক্ষার্থীরাও এতে আসক্ত হচ্ছে। তাই এর প্রভাব পড়েছে এসব খাতায়। জেলা শহরসহ বিভিন্ন উপজেলায় খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, স্টার জলসার সিরিয়াল জলনুপুর, তোমায় আমায় মিলে, কিরণমালা, বোঝেনা সে বোঝেনা সিরিয়ালের প্রধান চরিত্রের অভিনেতা ও অভিনেত্রীর বড় বড় বড় ছবি রয়েছে খাতার মলাটে। পাশেই কিংবা নিচে লেখা রয়েছে রূপকথার রাজকন্যাসহ বিভিন্ন কথোপকথন। মলাটের নিচের অংশে রয়েছে শিক্ষার্থীদের নাম, বিদ্যালয়ের নাম, শ্রেণী, শাখা, বিষয় এবং রোল নাম্বার লেখার জায়গা। একইভাবে বিভিন্ন সিরিয়ালের প্রধান প্রধান যেসব অভিনেতা মন কেড়েছে যেমন পাখির ছবি শোভা পাচ্ছে খাতার মলাটে। বেশ কয়েকটি লাইব্রেরী ও মুদি-মনোহরীর দোকান ঘুরে দেখা গেছে দেদারসে এসব খাতা বিক্রি হচ্ছে। নগরীর অস্টম শ্রেনীতে পড়–য়া এক স্কুল ছাত্রী জানায়, দোকানে মাত্র তিনটি সিরিয়ালের খাতা রয়েছে। তাই সে ৩০টাকা দিয়ে পাখির ছবিসংবলিত খাতা কিনেছে। বিক্রেতারা বলেন, সবে মাত্র বিভিন্ন দোকানে এসব সিরিয়ালের ছবিসংবলিত খাতা এসেছে। চাহিদাও মোটামুটি ভালো।
ক্ষোভ প্রকাশ করে একাধিক শিক্ষকেরা এসব খাতা দেখে বলেন, আগে খাতার মলাটে শহীদ মিনার, বাংলাদেশের মানচিত্র, জাতীয় স্মৃতিসৌধ, মুক্তিযুদ্ধ, গ্রামবাংলার এবং কবি-সাহিত্যিকদের ছবি দিয়ে করা প্রচ্ছদের খাতা বিক্রি করা হতো। যা দেখে প্রজন্ম দেশ সম্পর্কে জানতে ও বুঝতে চাইতো। এখন এক শ্রেনীর অধিক মুনাফালোভী খাতা প্রস্তুতকারী ব্যবসায়ীরা জেনে শুনে ও বুঝেই শিক্ষা উপকরণেও আপত্তিকর সব সিরিয়ালের নায়ক-নায়িকাদের বড় বড় ছবি দিয়ে খাতার মলাট বানিয়ে বাজারে ছেড়েছে। যা দেখে আজকের শিক্ষার্থীরা দেশের কবি, সাহিত্যিক ও মুক্তিযুদ্ধ ভুলে যেতে বসেছে। প্রজন্ম সিরিয়ালের অসুস্থ বিনোদনে অভ্যস্ত হয়ে হিংসা, পরশ্রীকাতরতা শিখছে। এসব খাতা প্রস্তুতকারী ও পাইকারী বিক্রেতাদের বিরুদ্ধে জরুরি পদক্ষেপ নেয়ার জন্য শিক্ষক ও অভিভাবকেরা সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
এ ব্যাপারে বরিশালের জেলা প্রশাসক ড. গাজী মো. সাইফুজ্জামান বলেন, এসব ছবিসংবলিত খাতা বাজারে আসার ব্যাপারে আমার জানা নেই। যদি কোনো অধিক মুনাফালোভী প্রকাশনী এ খাতা বের করেই থাকেন তাহলে সচেতন পাইকারী ও খুচরা দোকানীদের এ খাতা বিক্রি না করার জন্য তিনি (জেলা প্রশাসক) অনুরোধ করেছেন।
উল্লেখ, বোঝেনা সে বোঝেনা সিরিয়ালে পাখি চরিত্রে অভিনয়কারীর পোষাক (পাখি ড্রেসে) আকৃষ্ট হয়ে সেটি কিনতে না পেরে দেশের একাধিকস্থানে কিশোরীদের আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে। পাশাপাশি এসব সিরিয়াল দেখা নিয়ে অনেক পরিবারের স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া, বিবাদ লেগেই রয়েছে। এরই পরিপেক্ষিতে গত বছরের ৭ আগস্ট বাংলাদেশে ভারতীয় কলকাতার তিনটি টিভি চ্যানেল স্টার জলসা, স্টার প্লাস ও জি বাংলার সম্প্রচার বন্ধের জন্য ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ চেয়ে সুপ্রিম কোর্টের নির্দিষ্ট শাখায় রিট করেছেন একজন আইনজীবী।