ব্রিটিশ এমপিকে গুলি করে, ছুরি মেরে খুন

68

যুগবার্তা ডেস্কঃ যুক্তরাজ্যে লেবার পার্টির এক নারী এমপিকে গুলি করে ছুরি মেরে হত্যা করা হয়েছে। ওয়েস্ট ইয়র্কশায়ারের ব্রিস্টলে একটি লাইব্রেরির কাছে বৃহস্পতিবার এ ঘটনার পর যুক্তরাজ্যের ইউরোপীয় ইউনিয়নে থাকা প্রশ্নে গণভোটের প্রচার স্থগিত করা হয়েছে।
এক প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে রয়টার্স জানায়, ৪১ বছর বয়স্ক নারী সংসদ সদস্য জো কক্স কে তিনবার গুলি করা হয় এবং ছুরি দিয়ে আঘাত করা হয়। হামলার পর কক্স পড়ে যান। তার শরীর থেকে রক্ত ঝরছিল। মারাত্মক আহত কক্সকে কিছুক্ষণ পর ঘটনাস্থলেই মৃত ঘোষ ঘোষণা করেন ডাক্তাররা।
যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্টে বিরোধী দল লেবার পার্টির বেটলি অ্যান্ড স্পেন আসনের এমপি ছিলেন জো কক্স। হামলায় ৭৭ বছর বয়সী আরেকজন সামান্য আহত হয়েছেন।
ওয়েস্ট ইয়র্কশায়ার পুলিশ জানিয়েছে, তারা ব্রিস্টলের মার্কেট স্ট্রিট থেকে ৫২ বছর বয়সী এক ব্যক্তিকে সন্দেহভাজন হিসেবে আটক করেছে। হামলায় আরও কেউ জড়িত কিনা তা খুঁজে দেখছে পুলিশ।
রয়টার্স লিখেছে, কক্স যুক্তরাজ্যের ইউরোপীয় ইউনিয়নে (ইইউ) থাকার পক্ষে সোচ্চার ছিলেন। ব্রিস্টলে একটি বৈঠক করার প্রস্তুতি নেওয়ার সময় হামলার শিকার হন।
একজন প্রত্যক্ষদর্শী বিবিসিকে বলেছেন, গুলি করার আগে হামলাকারী অন্তত দুইবার চিৎকার করে বলেছেন- ‘পুট ব্রিটেইন ফার্স্ট’।
প্রত্যক্ষদর্শী এক ক্যাফে মালিক ক্লার্ক রথওয়েল রয়টার্সকে জানান, তিনি সজোরে ফেটে পড়ার মতো শব্দ শুনতে পান, একটি বড় বেলুন ফাটলে যেমন শব্দ হয়, তেমন। ঘটনাস্থলে একজন পঞ্চাশোর্ধ্ব ব্যক্তিকে বন্দুক হাতে দেখতে পান তিনি।
রথওয়েলের বর্ণনায়, এমপি জো কক্সকে দু’বার গুলি করেন বন্দুকধারী। তিনি লুটিয়ে পড়লে বন্দুকধারী তৃতীয়বারের মত তার মুখে গুলি করে।
এক ব্যক্তি বন্দুকধারীর দিকে এগিয়ে গেলে তাদের মধ্যে ধ্বস্তধ্বস্তি হয়। পরে হামলাকারী তার পকেট থেকে ছুরি বের করে এলোপাতাড়ি কক্সকে আঘাত করতে থাকে। এ সময় ভয়ে চিৎকার করে লোকজন ছোটাছুটি করতে থাকে।
তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন লেবার পার্টি নেতা জেরেমি করবিন। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনও গণভোট নিয়ে তার একটি সমাবেশের পরিকল্পনা বাতিল করেছেন।
যুক্তরাষ্ট্র ও জার্মানি এ হামলার ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছে, জো কক্সের জন্য জানিয়েছে শোক।
নিহত এই এমপির স্বামী ব্রেন্ডান কক্স সেই ঘৃণার বিরুদ্ধে সবাইকে একজোট হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন, যা কেড়ে নিয়েছে তার স্ত্রীকে।
গত পঁচিশ বছরের মধ্যে এই প্রথম কোনো ব্রিটিশ এমপিকে এভাবে খুন হতে হল। এর আগে ১৯৯০ সালে আইরিশ রিপাবলিকানদের হামলায় কনজারভেটিভ এমপি ইয়ান গাও নিহত হয়েছিলেন।