বোমাতংকে কনর্কডিয়া বিশ্ববিদ্যালয়

সদেরা সুজন, কানাডা থেকে: কানাডার অন্যতম বিদ্যাপীঠ বলে খ্যাত কনকর্ডিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে বোমাতংকেরে কারণে তিন দিনের জন্য বেশ কিছু বিভাগ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। C4 – Conseil des citoyens conservateurs du Canada নামের গোপন উগ্রপ্রন্থী একটি সংগঠনের মুসলিম শিক্ষাথীদের উদ্দেশ্য করে চিঠির প্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষ শিক্ষাথীসহ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিরাপত্তার জন্য এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

কনকর্ডিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সবচে’য়ে গুরুত্বপূর্ণ এবং শিক্ষার্থীদের পদচারনায় মুখরিত ইবি বিল্ডিং, হল বিল্ডিং এবং জিএম বিল্ডিং থেকে নিরাপত্তার কারণে সবাইকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। বোমা বিস্ফোরণের হুমকি খতিয়ে দেখছে পুলিশ। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিল্ডিংগুলোতে পুলিশসহ বিভিন্ন ধরেনর নিরাপত্তা বাহিনীর নজরধারীতে রয়েছে। একই চিঠি বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষ এবং মন্ট্রিয়লের সর্বাধিক পঠিত সংবাদপত্র ডেইলি গেজেটে পাঠিয়ে এই হুমকি দেয়া হয়েছে । মূলত মুসলিম ছাত্র-ছাত্রীদেরকে উদ্দেশ্য করেই এ চিঠিটি পাঠিয়ে হুমকি দেওয়া হয়েছে।

কনির্কডিয়া ইউনির্ভাসিটিতে প্রায় পঞ্চাশ হাজার শিক্ষার্থী রয়েছে যাদের মধ্যে উল্ল্যেখযোগ্য সংখ্যক শিক্ষার্থীই মুসলামান যারা সারা বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে উচ্চশিক্ষার জন্য এ বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়ন করছে। এ বিশ্ববিদ্যালয়ে মুসলমান শিক্ষার্থীদের জন্য নামাজ কক্ষসহ কিছু সুযোগ-সুবিধা থাকায় হয়তো এই উগ্রপ্রন্থী দলটি বোমা বিস্ফোরণের হুমকি দেয়েছে বলে অনেকেই মনে করছে। বিশেষ করে C4 – Conseil des citoyens conservateurs du Canada এর প্রেরীত চিঠিতে হিজাব পড়া নারী এবং টুপী পড়া পুরুষের মধ্যে রয়েছে ক্ষতবিক্ষত কানাডার জাতীয় পতাকা। চিঠিতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নাম উল্ল্যেখ করে সথর্ক করা হয়েছে যে মুসলিমদের অবস্থান পরিবর্তনের সময় হয়েছে।

বুধবার ১ মার্চ থেকে শুক্রবার ৩ মার্চ দুপুর দু’টার ভিতরে উল্লেখিত বিল্ডিংগুলোতে হামলা হতে পারে বলে চিঠিতে লিখেছে। কানাডার মন্ট্রিয়লে কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ধর্মের জন্য বোমা বিস্ফোরণের হুমকি এই প্রথম বলে জানা গেছে। কানাডা বহু জাতি ও ভাষার একটি শান্তিপ্রিয় দেশ বলেই সারা বিশ্বে খ্যাত।

কিন্তু ইদানীং বেশ কিছু ঘটনায় দেশের মানুষরা কিছুটা হলেও শংকিত । বিশেষকরে কয়েক সপ্তাহ পূর্বে ক্যুইবেকের একটি মসজিদে ঢুকে গুলি করে মুসুল্লিদেরকে হত্যা করার মতো ঘটনায় সারা কানাডার মানুষ যেমনি বিস্মিত হয়েছেন তেমনি সরকার সতর্কের সঙ্গে সবধরণের ঘটনা পর্যবেক্ষণ করছে।