বিশ্বব্যাংক প্রেসিডেন্ট ঢাকায় আসছেন আজ

যুগবার্তা ডেস্কঃ বাংলাদেশ সাফল্যের সঙ্গে নিম্ন-মধ্য আয়ের দেশে পরিণত হওয়ায় তার অগ্রগতি সরাসরি দেখার জন্য বিশ্বব্যাংক গ্রুপের প্রেসিডেন্ট জিম অং কিম আজ ঢাকায় আসছেন।
পদ্মা সেতুতে অর্থায়ন নিয়ে বিশ্ব ব‌্যাংকের সঙ্গে বাংলাদেশ সরকারের যে তিক্ত স্মৃতি রয়েছে, জিম ইয়ং কিমের সফর তা মুছে দেবে বলে আশা করছেন সংস্থাটির কর্মকর্তারা।
কিম তাঁর দুদিনের সফরে দারিদ্র্য নির্মূল দিবস উপলক্ষে একটি বেসরকারি অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন।
গত দুই দশকে দুই কোটিরও বেশি মানুষের দারিদ্র্য নিরসন, অর্থনৈতিক ভিত্তি দৃঢ় হওয়া, দরিদ্র মানুষের সঙ্গে উদ্ভাবনমূলক কাজ, বেসরকারি খাতে কর্মসংস্থান, মানবসম্পদ উন্নয়ন বিনিয়োগ ও কার্যকর দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশের অর্জনকে বিশ্বব্যাংক-প্রধান এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে উদযাপন করতে চান।
কিমের বক্তব্য উদ্ধৃত করে বিশ্বব্যাংক এক বিবৃতিতে বলেছে, বাংলাদেশ দারিদ্র্য নিরসনে অভূতপূর্ব সাফল্য অর্জন করেছে। এ ব্যাপারে বিভিন্ন দেশ বাংলাদেশ থেকে শিক্ষা নিচ্ছে।
বিশ্বব্যাংকের সর্বোচ্চ কর্মকর্তার বাংলাদেশ সফরের প্রাক্কালে এই বিবৃতিতে বলা হয়, সুশাসন শক্তিশালীকরণ ও বিনিয়োগ পরিবেশের উন্নয়নের মাধ্যমে বিশ্বব্যাংক গ্রুপ বাংলাদেশের সঙ্গে প্রাইভেট সেক্টরে কীভাবে আরো কাজ করবে সে ব্যাপারে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন বিশ্বব্যাংক গ্রুপ প্রেসিডেন্ট।
কিম তাঁর সফরের সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সঙ্গে দেখা করবেন। তিনি উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সঙ্গে দেশের উন্নয়নে ও অগ্রগতিতে বিশ্বব্যাংক কীভাবে আরো সম্পৃক্ত হতে পারে সে ব্যাপারে বিস্তারিত আলোচনা করবেন।
এ ছাড়া কিম সুশীলসমাজের প্রতিনিধি ও প্রাইভেট সেক্টরের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন। তিনি বিশ্বব্যাংকের সহযোগিতায় পরিচালিত কিছু প্রকল্পও পরিদর্শন করবেন।
এক দশক পর বিশ্ব ব‌্যাংকের কোনো প্রেসিডেন্ট বাংলাদেশ সফরে করতে এলেও কিমের এই সফরকে গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে দেখা হচ্ছে।
বিশ্ব ব্যাংক প্রেসিডেন্টের উপস্থিতিতে ‘বিশ্ব দারিদ্র্য বিমোচন দিবস’ পালন বাংলাদেশকে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে দৃষ্টান্ত হিসেবে মেলে ধরবে বলে মনে করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।
পদ্মা সেতুতে বিশ্ব ব‌্যাংকের অর্থায়নের কথা থাকলেও প্রকল্পে দুর্নীতির অভিযোগ নিয়ে টানাপড়েনের এক পর্যায়ে তাদের বাদ দিয়েই দেশের বৃহত্তম এই সেতুর কাজ শুরু করেছে বাংলাদেশ সরকার।