বিমান বন্দরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা ঢেলে সাজানো হয়েছে-বিমানমন্ত্রী মেনন

যুগবার্তা ডেস্কঃ বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন এমপি বলেছেন, সরকার বিমান এবং বিমান বন্দরের সেফটি এবং সিকিউরিটি শতভাগ নিশ্চিতকল্পে সম্ভব সব কিছু করতে দৃঢ় অঙ্গীকারবদ্ধ। ইতোমধ্যেই বিমান বন্দরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা ঢেলে সাজানো হয়েছে। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উন্নত প্রশিক্ষণসহ বিমান বন্দরে আধুনিক নিরাপত্তা সরঞ্জাম স্থাপন করা হয়েছে।
তিনি বলেন, বিমান ও বিমান বন্দরে জঙ্গী হামলা চালানো গেলে একদিকে বিশ্ব মিডিয়ায় ব্যাপক প্রচার পাওয়া যাবে এবং দেশকে পুরো পৃথিবী থেকে বিচ্ছিন্ন করে দেয়া যাবে। এটা মাথায় রেখে বিমান ও বিমান বন্দরের নিরাপত্তা নিশ্চিতকল্পে বিমান কর্মকর্তা -কর্মচারীসহ সবাইকে সবোর্চ্চ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।
তিনি আরও বলেন, ইরাক ও সিরিয়ায় পিছু হটে আই এস তার সদস্যদের বিভিন্ন দেশে নাশকতার উদ্দেশ্যে পাঠাচ্ছে বলে খবর পাওয়া গেছে । এরা যাতে বাংলাদেশকে তাদের সন্ত্রাসী কার্যক্রমের ক্ষেত্র না বানাতে পারে সে জন্য পাশাপাশি জঙ্গবাদ নির্মূলে সরকারের পাশাপাশি প্রতিটি ব্যক্তির সামাজিক ও নৈতিক দায়িত্ব রয়েছে। সবাইকে এ দায়িত্ব পালনে অতন্ত্র প্রহরীর ভূমিকায় অবতীর্ণ হতে হবে।
তিনি আজ দুপুরে কুর্মিটোলাস্থ বিমান সদর দপ্তর ‘বলাকায়’ বিমানের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সাথে ‘দেশের সাম্প্রতিক পরস্থিতি ও নিরপত্তায় করনীয়’ সম্পর্কিত সভায় এ কথা বলেন। বিমান পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান এয়ার মার্শাল (অব.) ইনামুল বারীর সভাপতিত্বে সভায় বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন সচিব এস এম গোলাম ফারুক, জিএম সিকিউরিটি মেজর (অব.) মো. আলী মোস্তফা মামুন, চীফ ইঞ্জিনিয়ার দেবব্রত বণিক, বিমান ফ্লাইং এশোসিয়েশনের সভাপতি ক্যাপ্টেন মাহবুবুর রহমান, বিমান সিবিএ সভাপতি মািশকুর রহমান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
বৈঠকে বিমান বন্দরের সিকিউরিটি সংক্রান্ত সরঞ্জামাদি ক্রয়, এপিবিএন , ইমিগ্রেশন, ও কাস্টমসের সাথে সমন্বয়, সিকিউরিটি কনসালটেন্ট কোম্পানী রেড লাইনের কার্যক্রম, গ্রাউন্ড হ্যান্ডলিং, কার্গো কমপ্লেক্সসহ আসন্ন হজ্জ ফ্লাইট সুষ্ঠু ও সুন্দর ভাবে পরিচালনা সংক্রান্ত বিষয়ে আলোচনা হয়।
প্রসঙ্গত আগামী ৪ আগস্ট সকাল ৮.০৫ এ বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন হজ্জ ফ্লাইট উদ্বোধন করবেন।