বিমানবন্দর নিয়ে যুক্তরাজ্যের ধাক্কা: মন্ত্রণালয়ের সচিব অপসারন

100

যুগবার্তা ডেস্কঃ শাহজালাল বিমানবন্দরের নিরাপত্তা ত্রুটির কারণ দেখিয়ে ঢাকা থেকে সরাসরি কার্গো ফ্লাইটের যুক্তরাজ্যে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞার প্রেক্ষাপটে নানামুখী আলোচনার মধ্যে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যানের পর বিমান সচিবকেও সরিয়েছে সরকার।
বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব খোরশেদ আলম চৌধুরীকে পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য করা হয়েছে। সোমবার প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন নিয়ে সংস্থাপন মন্ত্রণালয় এ রদবদল করে। বিমানবন্দরের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত না করতে পারার অভিযোগে বিমান সচিবকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।
পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য এম এম গোলাম ফারুক পেয়েছেন বিমান সচিবের দায়িত্ব।
জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সোমবার বিমান সচিব ছাড়াও আর ছয় কর্মকর্তার দপ্তর বদল করে আদেশ জারি করেছে।
গত রোববার চট্টগ্রামের জহুরুল হক বিমান ঘাঁটির অধিনায়ক এয়ার ভাইস মার্শাল এহসানুল গণি চৌধুরীকে বেবিচকের নতুন চেয়ারম্যান নিয়োগ দেয় সরকার।
গত ৮ মার্চ ঢাকা থেকে যুক্তরাজ্যে সরাসরি কার্গো ফ্লাইট চলাচল বন্ধ করে দেয় যুক্তরাজ্য।
ওইদিন দেশটির ডিপার্টমেন্ট অব ট্রান্সপোর্টের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ঢাকা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নিরাপত্তা পরিস্থিতি পর্যালোচনায় দেখা গেছে আন্তর্জাতিক মানদণ্ড নিশ্চিতের প্রয়োজনীয় কিছু বিষয় সেখানে পূরণ করা হয়নি।
নিষেধাজ্ঞা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে পোশাক শিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ সরকারকে দ্রুত উদ্যোগী হওয়ার আহ্বান জানায়। ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (ডিসিসিআই) পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়, সরকার আশু ব্যবস্থা না নিলে বাংলাদেশের বৈদেশিক বাণিজ্য ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে।
ওই নিষেধাজ্ঞা আসার পর জরুরি বৈঠক করে বেসামরিক বিমান চলাচলমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন জানিয়েছেন, শাহজালাল বিমানবন্দরের নিরাপত্তা ব্যবস্থার উন্নয়ন তদারকে চলতি মাসের বাকি দিনগুলো সচিবকে নিয়ে বিমানবন্দরেই অফিস করবেন তিনি।