বিমানবন্দরের নিরাপত্তা ব্যবস্থার উন্নয়নে বেসামরিক বিমানপরিবহন মন্ত্রী বিমানবন্দরে অফিস করবেন

135

যুগবার্তা ডেস্কঃ হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নিরাপত্তা ব্যবস্থাউন্নয়নে বাংলাদেশ ও যুক্তরাজ্যের সম্মত কর্মপরিকল্পনাকে আরওত্বরান্বিত করতে ৩১ মার্চ পর্যন্ত দিনের একটি সময়ে বেসামরিক বিমানপরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী ও সচিব শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অফিস করবেন বলে ।
কার্গো পরিবহনে যুক্তরাজ্যের সাময়িক নিষেধাজ্ঞাসহ বিমানবন্দরের সার্বিকনিরাপত্তা ব্যবস্থার উন্নয়ন, কার্গো কমপ্লেক্সের সুবিধাদি বৃদ্ধি এবং ইতিপূর্বে গৃহীত পদক্ষেপ সমূহমূল্যায়নে আজ এক জরুরী সভা বেসামরিক বিমানপরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদখানমেনন এমপি’র সভাপতিত্বে শাহজালাল বিমানবন্দরে অনুষ্ঠিত সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সভায় বেসামরিক বিমানপরিবহন ও পর্যটন সচিব খোরশেদ আলম চৌধুরী, সিভিল এভিয়েশনের চেয়ারম্যান এয়ারভাইসমার্শাল সানাউলহক, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ভারপ্রাপ্ত এমডি আসাদুজ্জামানসহ মন্ত্রণালয়, সিভিল এভিয়েশন এবং বিমান বাংলাদেশের ঊধ্বর্তন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিতছিলেন। সভায় জানানো হয় যুক্তরাজ্যের ঢাকাস্থহাইকমিশন, এভিয়েশনটিম এবং নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞদের পরামর্শক্রমে বিমানবন্দরের নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজানো হচ্ছে। নিরাপত্তা ব্যবস্থার আধুনিকায়নে স্পেশালটিম গঠন করা হয়েছে । আধুনিক সরঞ্জামাদি সংগ্রহে গত ৯ মার্চ প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত একনেকের সভায় ৯০ কোটি টাকার একটি প্রকল্প পাশ হয়েছে । বাংলাদেশের গৃহীত ব্যবস্থাদি সন্তোষজনক বলে বৃটিশহাইকমিশন জানিয়েছিলো । এ পরিপ্রেক্ষিতে এ ধরনের সাময়িক নিষেধাজ্ঞা অনাকাংখিত।
বিমানবন্দরের নিরাপত্তা নিশ্চিত এবং গ্রাউন্ডহ্যান্ডলিং ব্যবস্থার উন্নয়নে সিভিল এভিয়েশন ও বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স আরও নিবিড়ভাবে কাজ করবে এবং মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে পুরোকর্মকান্ডকে মনিটরিং করা হবে।
সভায় আশাবাদ ব্যক্ত করা হয় সম্মত কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়নের মাধ্যমে দ্রুতই যুক্তরাজ্যের অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার হবে এবং দুদেশের সম্পর্ক আরও উষ্ণ ও গভীরহবে।