বিদেশিদের হত্যা করে মহাজোট সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডকে বাধাগ্রস্থ করতে চায় একাত্তরের পরাজিত শত্রু জামায়াত বিএনপি- উজিরপুরে মেনন

93

কল্যাণ কুমার চন্দ,বরিশাল থেকে ঃ
বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন প্রশ্ন রেখে বলেন ফ্রান্সে যখন জঙ্গি আক্রমনে একশ’র উপর মানুষ মারা গেছে সে দেশ সম্পর্কে যুক্তরাষ্ট্র,যুক্তরাজ্য বা ইইউ সে দেশকে অনিরাপদ বলে সতর্কবানী করেছে কিনা ? বিদেশি নাগরিকদের হত্যা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে পরিচালিত মহাজোট সরকারের উন্নয়ন ও উৎপাদনশিল কর্মকান্ডকে বাধাগ্রস্থ করতে চায় একাত্তরের পরাজিত শত্রু জামায়াত ও বিএনপি। মন্ত্রী মেনন বলেন দেশে বসে না পেরে, বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এখন বিদেশে (লন্ডনে) গিয়ে দুর্নিতির বরপূত্র তারেক রহমানকে সাথে নিয়ে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে গভির ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে, এ কথা তিনি শনিবার বিকালে বরিশালের উজিরপুর মহিলা কলেজ মাঠে উপজেলা ওয়ার্কার্স পার্টির আয়োজনে স্মরনকালের বৃহত্তর এক লাল পতাকা সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে বলেন। মেনন আরো বলেন বিএনপি জামায়াত জোট একেরপর এক দেশের প্রগতিশিল মুক্ত মনা লেখক,প্রকাশক ও ব্লগারদের জবাই করে হত্যা করছে,হরতাল অবরোধের নামে জীবন্ত মানুষ পুরিয়ে হত্যা করেছে, আগুন দিয়ে পুরিয়ে দেশের প্রচুর শিক্ষা ও শিল্পপ্রতিষ্ঠান সহ শত শত স্থাপনা ধ্বংশ করেছে।এখন তারা নতুন কৌশলে বিদেশিদের টার্গেট করে হত্যা করছে,যাতে করে বিদেশিদের কাছে বাংলাদেশের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন হয়। অন্যদিকে আবার তারা সংলাপের কথাও বলছেন, কিন্তু না,দেশের জান,মাল,সম্পদ ধ্বংশকারি দেশের বিরুদ্ধে চক্রান্তকারিদের সাথে কোন সংলাপ হতে পারেনা । বিএনপি নেত্রী বেগম জিয়া দেশে জঙ্গিতৎপরতা সৃষ্টি করে বাংলাদেশকে অস্থিতিশিল করেতুলে তালেবানি রাষ্ট্রে পরিনত করে তিনি সেই তালেবানদের প্রধানমন্ত্রী হতে চাচ্ছেন। অসাম্পদায়িক বাংলাদেশে তার সে ইচ্ছা আর কোদিনও পুরন হতে পারেনা।
উল্লেখ্য যে,বরিশাল অঞ্চলে ওয়ার্কার্স পার্টির এ লাল পতাকা সমাবেশটি ছিল স্মরনকালের এক বৃহত্তর সমাবেশ। শনিবার দুপুর থেকেই উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নের হাজার হাজার নারী পুরুষ বিভিন্ন বাদ্য বাজনার তালে তালে লাল পতাকার সু সজ্জিত মিছিল নিয়ে সমাবেশে সমবেত হতে থাকে উজিরপুর উপজেলা সদরের মহিলা কলেজ মাঠে। বিকাল ৩টায় সমাবেশ শুরু হলে মহিলা কলেজের মাঠ ছাপিয়ে পার্শবর্তী সড়কগুলোতেও ঢল নামে হাজার হাজার মানুষের। আসন্ন পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন সম্পর্কে মেনন বলেন স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষ ব্যাবস্থাপনার মাধ্যমে মহাজোট সরকারের শরিকদলের যোগ্য প্রার্থীদের প্রত্যক্ষ অংশগ্রহনের মাধ্যমেই স্থানিয় সরকার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে এবং স্থানিয় সরকার নির্বাচনকে বাধাগ্রস্থ করতে বিএনপি জামায়াত জোট যেকোনো নাশকতা চালাতে পারে বলে তিনি আশংকা প্রকাশ করে বলেন ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা কর্মিদের লাল পতাকার ঝান্ডা নিয়ে সুষ্ট নির্বাচন পরিচালনার মাধ্যমে নাশকতাকারিদের প্রতিরোধ করে মহাজোটের প্রার্থীদের বিজয়ী করে বর্তমান সরকারের উন্নয়ন ও উৎপাদনশিল ব্যাবস্থাকে অব্যাহত রাখতে হবে।