বিএফইউজে সভাপতি নির্বাচিত বুলবুল

যুগবার্তা ডেস্কঃ সাংবাদিকদের সবচেয়ে বড় ট্রেড ইউনিয়ন ‘বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নে’র (বিএফইউজে) সভাপতি পদের উপ-নির্বাচনে একুশে টিভির এডিটর ইন চিফ ও সিইও মনজুরুল আহসান বুলবুল নির্বাচিত হয়েছেন। শুক্রবার রাতে নির্বাচনের ফল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার সিনিয়র সাংবাদিক আবু তাহের। মনজুরুল আহসান বুলবুল এর আগেও বিএফইউজের সভাপতি ও মহাসচিব ছিলেন। সভাপতির মৃত্যুতে দেশব্যাপী অনুষ্ঠিত উপ-নির্বাচনে ১০৮৬ ভোট পেয়ে নতুন সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন মনজুরুল আহসান বুলবুল। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বৈশাখী টেলিভিশনের প্রধান বার্তা সম্পাদক অশোক চৌধুরী পেয়েছেন ৯৭৩ ভোট। এ দু’জন ছাড়াও তৃতীয় প্রার্থী ডেইলি স্টারের সিটি এডিটর আব্দুল জলিল ভূঁইয়া পেয়েছেন ২৮৫ ভোট। ঢাকা কেন্দ্রে মনজুরুল আহসান বুলবুল পেয়েছেন ৭৮৬ ভোট, অশোক চৌধুরী ৬৩৮ ভোট ও আব্দুল জলিল ভুইয়া পেয়েছেন ২১৪ ভোট। ঢাকার বাইরে ৯টি কেন্দ্রে মনজুরুল আহসান বুলবুল পেয়েছেন ৩০০ ভোট। অশোক চৌধুরী পেয়েছেন ৩৩৫ ভোট। আর ৭১ ভোট পেয়েছেন আব্দুল জলিল ভুইয়া। চট্টগ্রামে মনজুরুল আহসান বুলবুল ১১৩, অশোক চৌধুরী ১৭৪ ও আব্দুল জলিল ভুইয়া ১১ ভোট পেয়েছেন। নারায়াণগঞ্জে মনজুরুল আহসান বুলবুল ১৭, অশোক চৌধুরী ১০ ও আব্দুল জলিল ভুইয়া ৪ ভোট পেয়েছেন। খুলনায় মনজুরুল আহসান বুলবুল ৩৪, অশোক চৌধুরী ৪৫ ও আব্দুল জলিল ভুইয়া ৭ ভোট পেয়েছেন। দিনাজপুরে মনজুরুল আহসান বুলবুল ২৬, অশোক চৌধুরী ১৪ ও আব্দুল জলিল ভুইয়া ১ ভোট পেয়েছেন। যশোরে মনজুরুল আহসান বুলবুল ২৩, অশোক চৌধুরী ১৯ ও আব্দুল জলিল ভুইয়া ২৮ ভোট পেয়েছেন। বগুড়ায় মনজুরুল আহসান বুলবুল ৩৬, অশোক চৌধুরী ২১ ও আব্দুল জলিল ভুইয়া ২ ভোট পেয়েছেন। রাজশাহীতে মনজুরুল আহসান বুলবুল ৮, অশোক চৌধুরী ৩০ ও আব্দুল জলিল ভুইয়া ১৮ টি ভোট পেয়েছেন। কক্সবাজারে মনজুরুল আহসান বুলবুল ২৩, অশোক চৌধুরী ১২ ও আব্দুল জলিল ভুইয়া কোনও ভোট পাননি। ময়মনসিংহে মনজুরুল আহসান বুলবুল ২০, অশোক চৌধুরী ১০ ও আব্দুল জলিল ভুইয়া কোনও ভোট পাননি। আওয়ামী-বামপন্থি সাংবাদিকদের সর্বোচ্চ এ সংগঠনটির সভাপতি ছিলেন প্রয়াত সাংবাদিক আলতাফ মাহমুদ। ২০১৫ সালের ২৭ নভেম্বর বিএফইউজের দ্বিবার্ষিক নির্বাচনে সভাপতি পদে নির্বাচিত হয়েছিলেন তিনি। নির্বাচিত হওয়ার কিছুদিনের মাথায় গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন সাংবাদিক সমাজের এ প্রিয় নেতা। চলতি বছর ২৪ জানুয়ারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। শুধু সভাপতি পদের এ উপ-নির্বাচনে ২৯ জুলাই জাতীয় প্রেসক্লাবে সকাল ৯টা থেকে শুরু হয়ে ভোট গ্রহণ চলে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। মাঝখানে জুমার নামাজ ও খাবার বিরতি থাকে এক ঘণ্টা। সভাপতি পদে উপ-নির্বাচনের জন্য ২৬ জুন তফসিল ঘোষণা করা হয়।