বিএনপিকে জামায়াত ছাড়তে হবে-কাদের সিদ্দিকী

যুগবার্তা ডেস্কঃ বিএনপিকে জঙ্গিবাদ বিরোধী জাতীয় ঐক্যের নেতৃত্ব দিতে হলে জামায়াতে ইসলামীর সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করতে হবে বলে জানিয়েছেন, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী। আজ শুক্রবার দুপুরে মতিঝিলে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন।
এক প্রশ্নের জবাবে কাদের সিদ্দিকী বলেন,‘খালেদা জিয়াকে বলেছি ১৫ই আগস্ট জন্মদিন পালন করা যাবে না। বঙ্গবন্ধুকে অবহেলা করে রাজনীতি করতে চাইলে আমি সেখানে থাকবো না।১৫ই আগস্ট বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুর দিনে খালেদা জিয়ার যদি প্রকৃত জন্মদিনও হয়, সেটা পালন করা চলবে না।’
কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি আরও বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু ছাড়া রাজনীতি করব না। জামায়াতকে নিয়ে রাজনীতি করব না। খালেদা জিয়াকে জাতীয় নেতৃত্ব দিতে হলে প্রথম স্পষ্টভাবে বলতে হবে, জামায়াত আর জোটে নেই।’
কাদের সিদ্দিকী আরও বলেন, ‘আমি গর্বের সঙ্গেই বলতে চাই, ১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধু যেমন ছিলেন একজন অবিসংবাদিত নেতা, কেউ মানুন আর না-ই মানুন, আজকে শেখ হাসিনাও সে অবস্থানে এসেছেন। তিনি বাংলাদেশের প্রধান জাতীয় নেতা। তবে খালেদা জিয়াকে একেবারে বাদ দিয়ে নয়।’
জোট থেকে জামায়াতকে ছাড়ার বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক এমাজউদ্দীন আহমদের বক্তব্য উল্লেখ করে কাদের সিদ্দিকী বলেন, এমাজউদ্দীন আহমদ যে মতামত ব্যক্ত করেছেন, তারপরে জামায়াতের ওইরকম ঔদ্ধত্য সহ্য করা যায় না।
কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের প্রস্তাবে খালেদা জিয়া কী বলেছেন জানতে চাইলে কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘একটি মানব সন্তান পেতে হলেও আমাদের ১০ মাস অপেক্ষা করতে হয়। এত তাড়াহুড়ার কি, আমরা প্রস্তাব দিয়েছি, দেখা যাক।’
জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে একই ধরনের আহ্বান সরকার পক্ষ থেকে আসলে যাবেন কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে কাদের সিদ্দিকী বলেন, আমি তো যেয়েই আছি।
আন্তরিকভাবে বাংলাদেশকে রক্ষার জন্য যেকোনো কাজে, জামায়াত ছাড়া আর জঙ্গি গণবাহিনী ছাড়া যাদের কাছে গিয়ে মনে হবে সত্যিকার অর্থে কিছু হবে, আমি তো সেখানে যেয়েই আছি।’
এর আগে গতকাল রাতে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ বিরোধী বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে বৈঠক করেছেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী।