বাড়িওয়ালার নৈরাজ্য, দিশেহার ভাড়াটিয়া

যুগবার্তা ডেস্কঃ বাড়িভাড়ার জন্য নীতিমালা থাকলেও বাড়ির ভাড়া নিয়ে চলছে চরম নৈরাজ্য। নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে ইচ্ছেমতো ভাড়া বাড়ান বাড়ির মালিকরা। এক্ষেত্রে অনেকটা অসহায় ভাড়াটিয়ারা। আইন সম্পর্কে সাধারণদের মধ্যে সচেতনতা তৈরির পাশাপাশি নীতিমালা আধুনিকায়নের কথা বলছেন আইনজীবীরা।
প্রায় পৌনে ২ কোটি মানুষের এই রাজধানীতে ৯০ শতাংশ মানুষই জীবিকার তাগিদে শিকড় ছেড়ে বাসিন্দা হয়েছেন ঢাকা নামক এই মেগা সিটির। তবে এখানে বাসা ভাড়ার পিছনে চলে যায় তাদের আয়ের ৬০ শতাংশ। সেই সঙ্গে বছরের শুরুতে বাড়ি ভাড়া বাড়ানোর প্রবণতায় আতঙ্কে থাকেন অধিবাসীরা। বাড়িওয়ালা-ভাড়াটিয়া এই দ্বন্দ্ব দিনদিন যেন চির বৈরী সম্পর্কের রূপ নিচ্ছে। কিন্তু দেশে বাড়িভাড়া নীতিমালা সম্পর্কে জানেন না দুপক্ষের কেউই।
সরকারি সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর দুর্বলতার কারণেই জনগণ এ নীতিমালা সম্পর্কে জানে না বলে অভিমত ভোক্তা অধিকার সংগঠন কনজ্যুমার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ-ক্যাবের। কনজ্যুমার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট হুমায়ুন কবির ভূঁইয়া বলেন, ‘সরকারের কোনো প্রচার নেই। ইচ্ছামতো আমি বাড়ি ভাড়া বাড়ালাম। তারা এটা জানে না যে এর জন্য একটা শাস্তির ব্যবস্থা আছে।’ ১৯৯১ সালে তৈরি বাড়ি ভাড়া নীতিমালা বর্তমান সময়ের উপযোগী করে তোলার উদ্যোগ নেওয়ার কথা বলছেন আইনজীবীরা। আর জনগণের মধ্যে সচেতনতা তৈরি করতে সিটি কর্পোরেশন কাজ করছে বলে জানান মেয়র সাঈদ খোকন। ক্যাবের তথ্য মতে, গত ২৪ বছরে দেশে বাড়ি ভাড়া বেড়েছে ৩৭২ শতাংশ। আর ২০১৬ সালে রাজধানীতে বাড়ি ভাড়া বেড়েছে গড়ে ৬ দশমিক ৩৩ শতাংশ।